১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, বিকাল ৪:৪৩

সেই শিরিনের খবর রাখবে একজন শিক্ষক

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মানসিক প্রতিবন্ধি শিরিন আক্তার এর চিকিৎসার জন্য তার পরিবারকে নগদ ১ লাখ ১৬ হাজার টাকা দিয়েছেন জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন। গতকাল সকালে বন্দর উপজেলা অডিটরিয়ামে এ অর্থ প্রদান করা হয়। প্রসঙ্গত, দৈনিক সংবাদচর্চা ও আরটিভিতে সংবাদ প্রচারের পর জেলা প্রশাসকের নির্দেশে প্রায় ২০ বছর শিকলবন্দি থাকা শিরিন আক্তারকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো.জসিম উদ্দিন তার বক্তব্যে বলেন, অমানবিক মানবতর জীবন যাপন করছিলেন বন্দর উপজেলার হাজীপুর এলাকার শিরিন। সামান্য একটা রোগের জন্য প্রায় অনেক বছর ধরে ঘরের ভিতর জেলখানার মতো আটকে থেকে দুঃখে দঃুখে শেষ হয়ে যাচ্ছিল তার জীবন। জেলা প্রশাসক আরো বলেন, এত সুন্দর সুশ্রী একটা মেয়েকে এই রোগের জন্য অনেক সময় পায়ে চেইন পরিয়ে আটকে রাখতে বাধ্য হতো তার পরিবার।

আজকে এখানে উপস্থিত আছে শিরিনের ভাই তার হাতে আমরা শিরিনের দেখভালর জন্য কিছু টাকা অনুদান দিব। যাতে শিরিনের খাবার দাবারের কোন কষ্ট না হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ, আরটিভির ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর ও প্রতিবন্ধি বিষয়ক অনুষ্ঠান ‘হাত বাড়িয়ে দিলাম’ এর পরিচালক সৈয়দা মুনিরা রহমান সহ অনেকে।

প্রায় ২০ বছর ধরে বন্দর উপজেলার হাজিপুর এলাকার শিরিন আক্তার শিকলবন্ধি ছিলেন। আরটিভির ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর ও প্রতিবন্ধি বিষয়ক অনুষ্ঠান ‘হাত বাড়িয়ে দিলাম’ এর পরিচালক সৈয়দা মুনিরা রহমান তাকে নিয়ে আরটিভিতে সংবাদ প্রচার করে। নারায়ণগঞ্জে শীর্ষ দৈনিক সংবাদচর্চা’য় শিরিনের করুণ জীবন যাপন নিয়ে ফলাও করে খবর প্রকাশ করে। এরপর শিরিনের চিকিৎসার জন্য ইসদাইর সমাজ উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান ১ লাখ টাকা দেন।

যা আজ শিরিনের ছোট ভাই এলিন এর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া উপজেলা প্রশাসন থেকে আরও ১৬ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে। এছাড়া শারীরিক দিক দিয়ে চেলেঞ্জ মানুষদের জন্য প্রধান মন্ত্রীর দেয়া সুবর্ন কার্ড শিরিনকে দিয়েছে উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার। এই কার্ডের মাধ্যমে প্রতি মাসেও সে টাকা পাবে। এর আগে শিরিনকে শিকল মুক্ত করে ঢাকার শ্যামলীতে মানসিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

জেলা প্রশাসক শিরিন আক্তারের দেখাশোনা করার জন্য স্থানীয় একজন শিক্ষককে দায়িত্ব দিয়েছেন। সে সপ্তায় এক দিন খবর নিবে যে শিরিন খাওয়া দওয়া ঠিক মত হচ্ছে কিনা অথবা কেউ তাকে কোন কারনে বিরক্ত করছে কিনা বা আরো কোন ডাক্তারি সাপোর্ট লাগবে কিনা তা দেখার জন্য।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ