১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, বিকাল ৪:৩৩

এমপি পদ কেড়ে নিতে চায়

সংবাদচর্চা অনলাইনঃ

নারায়ণগঞ্জ ৫ আসনের সাংসদ সেলিম ওসমান বলেছেন, মানুষ মানুষের জন্য। আমি রাজনীতি করবো কখনো ভাবি নাই। এমনও রাজনীতিবীদ আছেন যারা দোয়া করেন আমার যেন মৃত্যু হয়। বন্দর থেকে এমপি পদ কেরে নিতে চায়। কারণ আমার মৃত্যু হলে একটি আসন শূন্য হবে। আমি রাজনীতি করি না এটাই আমার দোষ। রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের হল রুমে খানপুর ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে উন্নয়নের জন্য মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সেলিম ওসমান বলেন, নারায়ণগঞ্জ বিসিক শিল্প এলাকায় প্রত্যক্ষ পরোক্ষ ভাবে এক কোটি মানুষের রোজগারের ব্যবস্থা আছে। কিন্তু আমাদের অভাবের শেষ নাই। আর এসকলের সব কিছুর মুলে অপরাজনীতি। হিংসা বিদেষের জন্য আমরা পিছিয়ে যাচ্ছি। মানুষকে শিক্ষা দেয়ার জন্য আল্লাহ এই মহামারী রোগ দিয়েছেন। এর থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে।

আপনার জন্য নির্বাচিত সংবাদঃ

জাতীয় পার্টির এমপি আরও বলেন, আমরা সবাই টাকার পিছনে দৌড়াচ্ছিলাম। টাকা ছাড়া আমরা কেউ কিছু বুঝি না। আমাদের মনে হচ্ছে করোনা মনে হয় চলে গেছে, আসলে তা নয়। করোনা দিন দিন আরো বাড়ছে। এর থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সারা বিশে^র মানুষ করোনা ভ্যাকসিন তৈরীর চেষ্টা করছেন। মানুষকে কিভাবে এর থেকে পরিত্রান দেয়া যায় ওই চেষ্টা চালাচ্ছে।

সেলিম ওসমান বলেন, চিকিৎসা ব্যবস্থা থেকে নারায়ণগঞ্জের মানুষের আস্থা হারিয়ে গেছে। আমি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই শিক্ষা নিয়ে কাজ করেছি। কতটুকু করতে পেরেছি তা জানি না। সুচিকিৎসা নিয়ে হয়তো আমাদের কিছু গাফিলতি আছে। আমাদের ভুল স্বীকার করতেই হবে। সব জায়গায় দালাল বাটপার ভরে গেছ। তারা হাসপাতাল থেকে রোগী ছিনতাই করে নিয়ে যায়। আমি খানপুর হাসপাতালে তত্বাবধায়কের পিএ সিদ্দিকের দূর্নীতির বিচারের দাবি জানিয়ে ছিলাম। সে কি করে বদলী হয়ে রাজশাহী চলে গেলেন। তার সাথে আমাদের আশেপাশের লোকজনও দুর্নীতিতে জড়িত ছিল। আমি এ ঘটনার তদন্তসহ বিচার দাবি করছি। নারায়ণগঞ্জের মানুষের পরিশ্রমের টাকা কেউ আত্মসাত করে নিয়ে যাবে তার বিচার হবে না এটা হতে পারে না।

নারায়ণগঞ্জের উপজেলা মাতৃসদন হাসপাতাল গুলোতে লুটপাট হচ্ছে। এবিষয় গুলোতে নজর দিতে হবে। এমপি বলেন, আমরা সবাই মিলে নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ণ করবো। নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার সবাইকে নিয়ে আলোচনায় বসবো। আমার সব থেকে বেশি প্রয়োজন হবে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়রকে। কারণ শহর যদি নোংরা থাকে তাহলে রোগব্যাধি ছড়াবে। জেলার উন্নয়নের স্বার্থে জনগণের মঙ্গলের জন্য আমরা সবাইকে নিয়ে এক টেবিলে বসে আলোচনার মাধ্যমে পরিকল্পনা নিয়ে ভবিষ্যতের উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালনা করবো।

এসময় খানপুর ৩শ’ শয্যা হাসপাতালের জন্য ৪ কোটি ২০ লক্ষ টাকা বিভিন্ন ব্যবসায়িরা অনুদানের চেক হস্তান্তর করেন। উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক সংসদ সদস্য হোসনে আরা বাবলী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোহাম্মদ আলী, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, বিকেএমইএর সিনিয়র সহ সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম, নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের সভাপতি তানভীর আহমেদ টিটু, সাবেক সভাপতি এম সোলায়মান, বিকেএমইএর পরিচালক কবির হোসেন, আলীরটেক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মতিউর রহমান ও সাবেক চেয়ারম্যান জাকির হোসেন প্রমুখ।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ