৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, রাত ৯:৪৮

নারায়ণগঞ্জের মিম ভারতের পতিতালয়ে!

বন্দর প্রতিনিধি:

উচ্চ বেতন পাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বন্দরে গৃহবধূ মিম (১৮)কে ফুসলিয়ে ঘর থেকে বের করে এনে ভারতের এক পতিতালয়ে বিক্রি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে দ্বীন ইসলাম ও শাহানাজ বেগম নামে দুই মানব পাচারকারির বিরুদ্ধে। গত গত ১১ আগষ্ট মঙ্গলবার বন্দর উপজেলার ফরাজিকান্দা কবরস্থান রোড এলাকায় এ মানব পাচারের ঘটনাটি ঘটে। এ ব্যাপারে দিনমজুর স্বামী দ্বীন ইসলাম মিয়া বুধবার দুপুরে বাদী হয়ে বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

দ্বীন ইসলাম গনমাধ্যমকে জানায়, আমি মাছ শিকার করে জীবন যাপন করে আসছি। গত ৮ মাস পূর্বে বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের সাবদী এলাকার মৃত হাফেজ মিয়ার মেয়ে মিমকে বিয়ে করি। করোনার কারনে রোজগারের কম হওয়াতে সংসারে অভাব অনাটন দেখা দেয়।

সে সুযোগে গত ১১ আগষ্ট ১০টায় আমার অবর্তমানে একই এলাকার মৃত মির আলম মিয়ার ছেলে দ্বীন ইসলাম দিলু (৩৫) ও ১নং মাধবপাশা এলাকার মনা মিয়ার মেয়ে শাহানাজ বেগম আমার স্ত্রী মিমকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে দুবাই নেওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের করে এনে ভারতের এক পতিতালয়ে বিক্রি করে দেয়। পরে আমার স্ত্রী পতিতালয় থেকে পালিয়ে এসে পুলিশের কাছে ধরা পরে। বর্তমানে আমার স্ত্রী ভারতের দমদম জেলে আটক রয়েছে বলে তিনি জানায়।

এ ব্যাপারে বন্দর থানার তদন্ত অফিসার সফিকুল জানান, আদম পাচারের ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আমরা অভিযোগটি তদন্ত করে দেখছি। অভিযোগের সত্যতা পেলে অবশ্যই দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ