১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, রাত ২:০৮

ক্রাইমসিন ভ্যান পাশ্ববর্তি জেলাকে সহযোগীতা করবে-এসপি মনিরুল

সংবাদচর্চা রিপোর্ট:

পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম বলেছেন, আমাদের জেলায় একটি ক্রাইমসিন ভ্যান যুক্ত হওয়ায় খুন, ডাকাতি, ধর্ষণ সহ নানা চাঞ্চল্যকর মামলার রহস্য উদ্ঘাটনের সূচনা হয়েছে।

আমাদের তদন্ত ট্রেডিশনাল তদন্ত থেকে একেবারেই আলাদা। সাইন্টিফিক ওয়েতে ইনভেস্টিগেট করা হয়। বিশ্বের যতো মডার্ন টেকনোলজি আছে সব আছে আমাদের। যেসব গলিত লাশ পাওয়া যায়, তাদের ফিংগার প্রিন্ট থেকে আইডেন্টিটি বের করে থাকি। আসামী যখন কোনো অপরাধ করে, তারা অনেক কিছুই রেখে যায়। আমরা সেই ক্রাইমসিন ভ্যানের মাধ্যমে আমাদের পাশ্ববর্তী জেলাকেও সহযোগীতা করতে পারবো।

বৃহস্পতিবার ২০ আগস্ট দুপুরে আড়াইহাজারের বালিয়াপাড়া এলাকার মোঃ আবু বকর সিদ্দিকের ছেলে শাকিল হত্যার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারের পর এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

মনিরুল ইসলাম আরও বলেন, হাজার দুয়েক টাকার জন্য মানুষ খুন করতে পারে, শাকিল হত্যাই এটার বাস্তব উদাহরণ। অপরাধীরা ভাবে সে অপরাধের পর পার পেয়ে যাবে। কিন্তু অপরাধ কখনো লুকায়িত থাকে না। ছোট্ট একটা লোভের কারনে বেশ কয়েকটা পরিবার বিপদগ্রস্থ হয়। এটা অপরাধীদের জন্য একটা মেসেজ, রেড সিগন্যাল। আপনারা অপরাধ করবেন, জানবেন না যে লিড রেখে যাচ্ছেন। আমরা সেটা কালেক্ট করে নিয়ে আসবো। সাইন্টিফিক উপায়ে ইনভেস্টিগেট করবো। অপরাধ করে কখনোই পার পাওয়া যায় না। সময় লাগতে পারে দুই বছর পাঁচ বছর, পুলিশকে ফেস করতেই হবে।

এ সংবাদ সম্মেলনে পিবিআই নারায়ণগঞ্জ জেলার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ