আজ রবিবার, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সৌদি আরবের কাছে হারল আর্জেন্টিনা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কাতার বিশ্বকাপে প্রথম অঘটন ঘটিয়েছে সৌদি আরব। মঙ্গলবার কাতারের আইকনিক লুসাইল স্টেডিয়ামে আর্জেন্টিনাকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারায় দেশটি।

আর্জেন্টিনার মতো শক্তিশালী দলকে হারিয়ে ফুটবল বিশ্বের এখন আলোচনায় সৌদি আরব। এ জয় উদযাপনের জন্য বুধবার দেশটিতে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

আরব নিউজের খবরে বলা হয়, জাতীয় দলের জয় উদযাপনের জন্য ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের ছুটির বিষয়টি অনুমোদন দিয়েছেন বাদশাহ সালমান ।
সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, এদিন সব সরকারি-বেসরকারি খাতের কর্মচারী এবং সব পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের ছুটি থাকবে।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শুরুতে গোল করে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল খেয়ে ২-১ ব্যবধানে হারে আর্জেন্টিনা।

শক্তি-সামর্থ্য, ঐতিহ্য, সাফল্য সব দিক থেকেই সৌদি আরবের চেয়ে যোজন-যোজন ব্যবধানে এগিয়ে আর্জেন্টিনা। ম্যাচের প্রথমার্ধে তাই মনে হয়েছে।

কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর ৫ মিনিটের ব্যবধানে বিশ্বকে চমকে দেয় সৌদি আরব। মাত্র ৫ মিনিটের ব্যবধানে সালেহ আলসেহরি ও সালেম আল দাওসারির গোলে ২-১ গোলে এগিয়ে যায় সৌদি আরব। এরপর আর গোল দিতে না পারায় হার এড়ানো সম্ভব হয়নি মেসিদের।
এদিন লুসাইল স্টেডিয়ামে কাতারের আমীর শেখ তামিম বিন হামাদ আল সানি ও সৌদি ক্রীড়ামন্ত্রী প্রিন্স আবদুল আজিজ বিন তুর্কি আল ফয়সাল ম্যাচটি উপভোগ করেন। খেলা শেষে গ্যালারিতে এসে সৌদি পতাকা হাতে নিয়ে শুভেচ্ছা জানান কাতারের আমীর।

অন্যদিকে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আর্জেন্টিনার সঙ্গে ম্যাচটি উপভোগ করেছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স ও দেশটির প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমান।
নিজ দেশের খেলোয়াড়দের এমন অভাবনীয় সফলতায় উচ্ছ্বাস প্রকাশের পাশাপাশি সিজদায় লুটিয়ে পড়ে শুকরিয়া আদায় করেন সৌদির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এই ক্ষমতাধর ব্যক্তি। দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে তার সেই ছবিটি প্রকাশ করা হয়েছে।
সৌদি আরবের বিরুদ্ধে গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দশম মিনিটে মেসির দেয়া পেনাল্টি গোলে লিড পায় ১৯৮৬ সালের চ্যাম্পিয়নরা। ২২তম মিনিটে একটি গোল করেন মেসি। কিন্তু লাইন্সম্যান আগেই ফ্ল্যাগ তুলে দাঁড়িয়ে থাকেন। জানালেন এটা ছিল অফসাইড। ২৮ মিনিটে লওতারো মার্টিনেজ গোল করেন। কিন্তু এবারও ভিএআরের কারণে দেকা গেলো তিনি ছিলেন অফসাইডে। সুতরাং গোল বাতিল। ৩৪ মিনিটে আরও একবার সৌদির জালে বল জড়ায় আর্জেন্টিনা। কিন্তু তার আগেই সাইড রেফারি জানিয়ে দেন- এটা ছিল অফসাইড।
তবে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে সমতায় ফিরলো সৌদি আরব। ৪৮তম মিনিটে গোল করেন সালেহ আল শেহরি। পাঁচ মিনিটের মধ্যেই লিড নেয় সৌদি আরব। ৫৩তম মিনিটে দুর্দান্ত গোল উপহার দিয়েছেন সালেম আল দোসারি। এ গোলেই শেষতক ঐতিহাসিক জয় কুড়ায় সৌদি আরব। সৌদির গোল রক্ষক দারুণ খেলা উপহার দিয়েছেন। বিরতির পর সৌদি আরব অনেক আক্রমণ করেছে। বল তাদের নিয়ন্ত্রণে থেকেছে অনেকে সময়।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ