২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, সকাল ৭:৩৪
বিজ্ঞাপন

শহরের অধিকাংশ মার্কেট টালেনহীন

নাদিম হাসান

ঈদ উপলক্ষ্যে শহরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিংমল খুলে দেয়ার পর প্রায় সব মার্কেটের প্রবেশ পথে বসানো হয়েছিল জীবাণুনাশক টানেল। তবে, ৬০ দিনের ব্যবধানে অনেক মার্কেটের সামনে থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে জীবাণুমুক্ত করণ বুথ। তাছাড়া চাষাঢ়ায় কয়েকটা বিপনী বিতান ও শপিংমলের সামনে টানেল দেখা গেলেও তার বেশির ভাগই এখন বন্ধ হয়ে আছে। আর ডিআইটি এলাকায় কোন টানেলই চোখে পরেনি। এতে করে ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

সরেজমিনে দেখা যায়, নারায়ণগঞ্জের এক নম্বর রেলগেট এলাকায় রিভারভিউ মার্কেট, আল জয়নাল প্লাজায় ঈদের সময় জীবাণুনাশক টানেল থাকলেও বর্তমানে নেই কোন সুরক্ষা ব্যবস্থা ও জীবাণুনাশক বুথ। দুই নং রেলগেট এলাকায় ফজর আলি ট্রেড সেন্টার, মিড টাউন শপিংমল ও ডিআইটি গ্রীন সুপার মার্কেট, বর্ষন সুপার মার্কেট, সোনার বাংলা মার্কেট, এফ রহমান সুপার মার্কেট, খান সুপার মার্কেট এবং উকিল পাড়া এলাকায় টপ টেন শপিংমল, টপ মার্ট শপিংশলসহ বেশ কিছু মার্কেটের প্রবেশ পথে দেখা গেছে একই চিত্র।

চাষাঢ়া গ্রান্ড হল ভবনের সামনে রয়েছে দুইটি টানেল যার একটি অকেজো হয়ে আছে। হাকিম সেন্টারে প্রবেশ ধারে একটি জীবাণু মুক্ত করণ বুথ আছে তবে তা এখন বন্ধ। হক প্লাজার গেটের বাইরের টানেলটিও বর্তমানে নষ্ট হয়ে আছে। পানোরোমা প্লাজা ও লুৎফা টাওয়ার, সান্তনা মার্কেট, আল জয়নাল ট্রেড সেন্টারের সামনে একটি করে টানেল বসানো হলেও তা এখন বন্ধ রয়েছে। তবে সমবায় সুপার মার্কেট, বেইলি টাওয়ার ও প্যারাডাইজ ক্যাসেলের সামনে সচল অবস্থায় রয়েছে একটি করে জীবাণু নাশক টানেল।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, জীবাণু নাশক টানেল বা বুথ আসলে একটি সুড়ঙ্গের মতো পথ। যেখানে স্প্রেয়ারের মাধ্যমে জীবাণুনাশক তরল ছিটানো হয়। জীবাণুনাশক তরল হিসেবে আমাদের দেশে সাধারণত সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইট বা বিøচিং দ্রবণ কিংবা হাইড্রোজেন-পার-অক্সাইড দ্রবণ ব্যবহার হচ্ছে। এতে বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া, ছত্রাক ও প্রায় ২৫ ধরনের ভাইরাস কার্যকরভাবে ধ্বংস হতে পারে।
প্রতিদিই শপিংমলগুলোতে রয়েছে কম বেশি ক্রেতাদের ভিড় রয়েছে। করোনার এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে শপিংমলের সামনে জীবাণু নাশক টানেল না থাকায় ঝুঁকি নিয়েই আসা যাওয়া করতে হচ্ছে ক্রেতাদের। সচেতন মহলের মতে, প্রশাসন নজরদারি করলে মার্কেট কর্তৃপক্ষ নিয়ম মানতে বাধ্য হবে।