৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, রাত ৯:১৩

যে রাস্তায় দুর্ভোগ কমেনি

#ড্রেনের বাজেট ছিলো না: এলজিইডির সি. সহ. প্রকৌশলী

সংবাদচর্চা রিপোর্ট:

অল্প বৃষ্টিতেই ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের সামনের রাস্তা থেকে শুরু করে শিবুমার্কেট পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে পানি জমে থাকে। আর টানা বৃষ্টি হলে এসব স্থানে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। এতে এই রাস্তায় চলাচল করা প্রতিটি মানুষকে প্রতিনিয়তই বিভিন্ন ভাবে দূর্ভোগ পোহাতে হয়। তবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসির অভিযোগ রাস্তার পাশে ড্রেন না থাকায় একটু বৃষ্টিতেই পানি জমে যায়।
জানা যায়, পোষ্ট অফিস থেকে শিবুমার্কেট পর্যন্ত এলজিইডি প্রায় ২ বছর আগে নতুন করে আরসিসি ঢালাই দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করে। তবে রাস্তার পানি নিস্কাশনের জন্য কোনো ড্রেন নির্মাণ করেনি। এতে একটু বৃষ্টি হলেই পানি জমে যায়।

এ বিষয়ে এলজিইডির সিনিয়র সহকারি প্রকৌশলী এ এম খরশেদ আলম জানান, রাস্তা নির্মাণ প্রকল্পে ড্রেন নির্মাণের কোনো বাজেট ছিলো না। এছাড়া রাস্তার পাশে কারখানা ও বাড়ি থাকায় ড্রেন নির্মাণের কোনো জায়গা নেই। এসব বিষয় ও রাস্তায় পানি জমে থাকার বিষয় মাথায় রেখেই নতুন রাস্তা আরসিসি ঢালাই দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে। যাতে খুব সহজে রাস্তা নষ্ট না হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, পূর্বেও বেহাল দশা ছিলো শিবু মার্কেট থেকে পোষ্ট অফিস যাওয়ার রাস্তায়। র্দীঘ কয়েক বছর দূর্ভোগ পোহানোর পর গত ২ বছর আগে এলজিইডি নতুন রাস্তা নির্মাণ করেন। তবে নতুন রাস্তায় হলেও দূর্ভোগ লাগভ হয়নি। উল্টো চলাচলে আরো বেশি বেগ পেতে হচ্ছে। আগে ড্রেন না থাকলেও অল্প বৃষ্টিতে পানি জমে থাকতো না। কারন রাস্তার পাশে মাটি থাকায় একটু রোদ দেখা দিলেই তা শুকিয়ে যেতো। এলাকাবাসী বলেন, ড্রেন নির্মাণ না করে রাস্তা নির্মাণ হলেই এমন অবস্থার সৃষ্টি হবে। এজন্য ড্রেনের বাজেট রেখেই রাস্তা নির্মাণ করা উচিত।

সরেজমিনে দেখা যায়, শিবু মার্কেট থেকে শুরু করে বেশ কয়েক জায়গায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। তবে ইউনিয়ণ পরিষদের সামনের রাস্তা অন্যসব স্থানের চেয়ে বেশি জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়াও সব সময় পানি জমে থাকায় অনেক স্থানের রাস্তা ভেঙে যাচ্ছে। সৃষ্টি হয়েছে ছোট বড় গর্তের। আর তাই এই রাস্তায় চলাচল করা পরিবহন চালক ও সাধারন মানুষকে সব সময়ই দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

এ বিষয়ে ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার লুৎফর রহমান স্বপন বলেন, এটি এলজিইডির করা রাস্তা। এখানে আমাদেও কিছু করার নেই। তাছাড়া পানি নিস্কাশনের কোন জায়গা নেই। কারন এলজিইডি রাস্তা নির্মান করেছে কিন্তু ড্রেন করেনি। তাই একটু বৃষ্টি হয়েই পানি জমে যায়। তবে বিষয়টি আমরা এলজিইডিকে যানাবো।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ