১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, রাত ৮:০৬

মামলার আসামি মমতা

অনলাইন ডেস্ক:

পশ্চিমবঙ্গে নারদ মামলায় আসামির তালিকায় এবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক ও দলটির নেতা কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম যুক্ত করা হয়েছে। ভারতের তদন্তকারী সংস্থা সেন্ট্রাল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (সিবিআই) এ তথ্য জানিয়েছে।

বুধবার ( ১৮ মে) কলকাতা হাইকোর্টে মামলার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আদালতে মামলাটি পশ্চিমবঙ্গের বাইরে অন্য কোনো রাজ্যে স্থানান্তরের আবেদন জানিয়েছে সিবিআই।

আবেদনের পক্ষে যুক্তি হিসেবে সিবিআই কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গে এই মামলার বিচারকাজ চললে তাতে রাজনৈতিকভাবে প্রভাব বিস্তারের সম্ভবনা আছে। আবেদনে মামলায় গ্রেফতার দুই মন্ত্রীসহ চার তৃণমূল নেতার কারা হেফাজত বহাল রাখার আবেদন জানিয়েছেন তারা।

এর আগে সোমবার নারদ মামলার আসামি হিসেবে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের পরিবহন মন্ত্রী ও কলকাতা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ফিরহাদ হাকিম, পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, বিধায়ক (বিধানসভার সদস্য) মদন মিত্র ও বিধায়ক শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করে সিবিআই।
তাদের গ্রেফতারের এক ঘণ্টার মধ্যেই সিবিআই কার্যালয়ে যান তৃণমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গ্রেফতারের কারণ জানতে চেয়ে কথাও বলেন সিবিআই কর্মকর্তাদের সঙ্গে। এমনকি গ্রেফতারির প্রতিবাদ জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘তাহলে আমাকেও গ্রেফতার করুন। নইলে সিবিআই দফতর ছাড়ব না। ‘

আদালতে এদিন নারদের জো়ড়া মামলা শুনানি। একটি নারদ মামলা অন্যরাজ্যে স্থানান্তরের জন্য সিবিআইয়ের আবেদন, অন্যদিকে নারদে অভিযুক্ত চার নেতা মন্ত্রীর জামিনে স্থগিতাদেশের আর্জি পুনর্বিবেচনার আবেদনের শুনানি।

নারদ মামলায় গ্রেফতার চার নেতা-মন্ত্রীর জামিনের নির্দেশ সোমবার কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দলের ডিভিশন বেঞ্চ স্থগিত করে দিয়েছিলেন। মঙ্গলবার সেই স্থগিতাদেশ পুনর্বিবেচনার আবেদন নিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির এজলাসেই আবেদন করেন অভিযুক্ত চারজনের আইনজীবীরা।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ