৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, সকাল ১১:৩২

মর্গ্যান স্কুলে ‘ভাষা সৈনিক মমতাজ বেগমের’ নামে ভবন উদ্বোধন

সংবাদচর্চা অনলাইনঃ

ভাষা সৈনিক মমতাজ বেগমের নামে নারায়ণগঞ্জের মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নতুন ভবনের উদ্বোধন করা হয়েছে।  

রোববার ২১শে ফেব্রুয়ারি দুপুর দেড়টায় মর্গ্যান স্কুল মিলনায়তনে এ ভবনের উদ্বোধন করা হয়।  

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের ও স্কুল কমিটির চেয়ারম্যান এবং নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, মমতাজ বেগমের নাতি ইঞ্জিনিয়ার রওনকুল ইসলাম, নাতনী অতিরিক্ত ট্যাক্স কমিশনার ডঃ নাশিদ রিজওয়ানা মুনির, জেলা জাসদ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোহর আলী চৌধুরী, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক শরীফ উদ্দিন সবুজ, স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ।

অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, মমতাজ বেগমের নামে একটি ভবন করতে পেরে আমরা সম্মানিত হয়েছি। তার তেজস্বিতা, সততা, ন্যায়পরায়ণতা নিয়ে নতুন প্রজন্ম গড়ে উঠুক এটাই আমাদের প্রত্যাশা।  

ভাষা সৈনিক মমতাজ বেগমের নাতনী জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডাঃ ফারজানা ইসলাম রুপা পিএইচডি বলেছেন, মমতাজ বেগম ভাষার জন্য, দেশের মানুষের জন্য তার জীবন বিলিয়ে দিয়ে গেছেন। তাকে মুল্যায়ন করতে হলে প্রায় সত্তর বছর আগের এ দেশের সমাজ, পরিবার, রাষ্ট্রের পরিস্থিতি বিবেচনায় রাখতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সেসময়ে একজন নারী পারিবারিক বাধা, সামাজিক বাধা তুচ্ছ করে বের হয়ে রাষ্ট্রের চাপিয়ে দেয়া ভাষার বিরুদ্ধে নিজের মাতৃভাষা রক্ষার দাবীতে আন্দোলন করছে এটি অনেক বড় ব্যাপার। তিনি শুধু নিজ স্কুলের ছাত্রীদের নিয়েই আন্দোলন করেননি। সেসময়ের ছাত্র নেতাদেরও নিয়মিত বুদ্ধি, পরামর্শ দিয়েছেন উজ্জীবিত করেছেন যেটি ভাষা সৈনিক শফি হোসেন খান বলে গেছেন।

একুশে পদপ্রাপ্ত ভাষা সৈনিক মমতাজ বেগম ১৯৫২ সালে ভাষা আন্দোলনের সময় নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা  ও মর্গ্যান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ছিলেন। তিনি স্কুলের ছাত্রীদের নিয়ে ভাষার দাবীতে নারায়ণগঞ্জে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলেন। এবং চাষাড়া পুলিশ ফাড়ির সামনে থেকে গ্রেফতার হন।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ