৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, রাত ৮:৪২

বাথরুমে যাওয়ার পথে গৃহবধূকে ধরে নিয়ে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে এক গৃহবধূকে মুখ চেপে ধরে বাথরুমের ভেতরে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় গৃহবধূ বাদী হয়ে থানায় দুই ব্যক্তিকে আসামি করে রোববার দিবাগত রাতেই একটি মামলা করেছেন। তিনি এক সন্তানের মা। মামলার পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ শামীম (৩২) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছেন। তিনি সাতগ্রাম ইউনিয়নের নোয়াদ্দা এলাকার মৃত আসকর আলীর ছেলে। তিনি এক সন্তানের বাবা। সুত্রের খবর এই ঘটনায় তার সহযোগি আনোয়ার (৩০) নামে এক ব্যক্তিকেও আসামি করা হয়েছে । তবে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। তিনি নরসিংদী থানাধীন টানপাথরপাড়া এলাকার আরমানের ছেলে।

সোমবার ৩০ আগস্ট বেলা ১১টায় গ্রেপ্তারকৃত শামীমকে নারায়ণগঞ্জের আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে রোববার দিবাগত রাতে তাকে তার নিজ বাড়ি থেকে পুলিশ আটক করে। আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিসুর রহমান মোল্লা মামলার বিষিয়টি নিশ্চিত করেছেন। এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ধৃত আসামি দীর্ঘদিন ধরেই গৃহবধূকে উত্যক্ত করে আসছিল। ২৫ আগস্ট তার স্বামী বাড়িতে ছিলেন না। এই সুযোগে রাতে নির্যাতিতার বসত ঘরের বাথরুমের পার্শ্বে আগে থেকে লুকিয়ে অবস্থান করছিল শামীম। গৃহবূধ বাথরুমে ভেতরে ঢুকার সময় তাকে পেছন দিক থেকে মুখ চেপে ধরে। এক পর্যায়ে বাথরুমের ভেতরে নিয়ে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করা হয়। এ সময় বাইরে দাঁড়িয়ে ছিলেন তার সহযোগি আনোয়ার। কিছুক্ষণ পর গৃহবধূর স্বামী বাড়িতে এসে ডাকাডাকি করে তাকে না পেয়ে বাথরুমের দিকে এগিয়ে গেলে দরজার ভেতরে থেকে বন্ধ দেখতে পেয়ে তার সন্দেহ হয়। এক পর্যায়ে দরজা খোলে পাওয়ারলুম শ্রমিক শামীম ও তা সহযোগি দৌঁড়ে পালিয়ে যায়।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ