আজ রবিবার, ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

“প্রিয়াঙ্কা ও রাষ্ট্রপতি”

আসিফ নজরুল: প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে নিয়ে রাষ্ট্রপতির মন্তব্যে আমি অবাক এবং ক্ষুব্ধ। প্রিয়াঙ্কা এদেশে এসেছিলেন ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে। রাষ্ট্রপতির সেটা মনে রেখে তার উদাহরণ মানুষকে অনুসরণ করতে বলা উচিত ছিল। তিনি বরং নায়িকা হিসেবে প্রিয়াঙ্কার প্রতি একধরনের মানুষের যে সুপ্ত আকর্ষণ রয়েছে সেদিকে সুড়সুড়ি দিয়ে তাকে নিয়ে অশ্লীল ও আপত্তিকর কথা বলেছেন।

আমি মনে করি, রাষ্ট্রপতির কাজ মানুষকে যা তা বলে হাসানো না। সস্তা রসিকতা করার সময় তার দিকে ছাত্র-ছাত্রীদের আমি শ্রদ্ধা নিয়ে তাকাতে দেখি না, বরং মনে হয় কোন কৌতুক অভিনেতার কথা শোনার সময় মানুষের যে অভিব্যক্তি হয় সেভাবে তাকিয়ে থাকে তার দিকে তারা।

আর সত্যি বলতে কি তার কোনো কথাবার্তা আমার এখন আর মূল্যবান ও অর্থবহ মনে হয় না। তিনি স্পিকার থাকার সময় মোটামুটি নিরপেক্ষভাবে সংসদ পরিচালনা করতেন, বহু মানুষের মতো আমিও তাকে শ্রদ্ধা করতাম। কিন্তু রাষ্ট্রপতি হিসেবে তার ভূমিকা কি? আজ পর্যন্ত একটা কালো আইন তিনি স্বাক্ষর না করে ফিরিয়ে দিয়েছেন? আজ পর্যন্ত কোথাও কোন ভাষণে তিনি সরকারের প্রতি অভিভাবক সুলভ নির্দেশনা দিয়েছেন? কোন ক্রান্তিকালে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করার মতো কিছু করেছেন, কোনোদিন কোন একটা রাজনৈতিক অচলাবস্থা নিরসনের উদ্যোগ নিয়েছেন?

তার এখনকার কথাবার্তা শুনে মনে হয় উনার প্রধান কাজ হচ্ছে যুবসমাজকে কিছু সস্তা বিনোদন বিতরণ করা। আমার মনে হয় না রাষ্ট্রের প্রধান ব্যক্তির কাছে এটা আমাদের চাওয়া হতে পারে। সূত্র: ফেসবুক টাইমলাইন।

পরিচিতি: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক এবং একজন সংবিধান বিশেষজ্ঞ।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ