১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, রাত ৩:২৭

প্যারিস বাগেটের খাবারে তেলাপোকা

সংবাদচর্চা রিপোর্ট:

বেশ কয়েকবার জরিমানার পরও প্যারিস বাগেটের তৈরীকৃত খাবারে পাওয়া গেছে তেলাপোকা। আর সেই খাবারের ছবি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পরলে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায় এ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে।

মুয়াবিয়া আল অনিক নামের একজন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘ঠিক বুঝলাম না! এরা কি তেলাপোকার ফার্ম দিয়ে বসল নাকি। বাসার ছোট বাচ্চাদের জন্য আজকে দুটো পেষ্ট্রি কেক আনা হয়। কেকগুলো দেখেই কেমন যেন বাসি বাসি মনে হচ্ছিল। তাই টেস্ট করে দেখতেই বুঝলাম কেকগুলো আসলেই বাসি ছিল! এরপরই চোখে আসে কেকের মধ্যে ফুট ফুটে তেলাপোকার বাচ্চাগুলো। তার এই পোস্টে প্যারিস বাগেটের নগরীর কোন শাখা তা উলেখ্য করেন নি পোস্টদাতা।

এর আগে গত ১০ আগস্ট, সাখাওয়াত হোসেন নামের একজন একই অভিযোগ করে ফেসবুকে পোস্ট করেন। তিনি প্যারিস বাগেটের উত্তর চাষাড়া শাখার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে বলেন, আমরা ১টি সর্মা, ১টি চিকেন রোল, একটি চিকেন টিক্কা বার্গার অর্ডার করলাম। তারপর খাবার নিয়ে ভিতরে গেলাম। যাওয়ার পর দেখলাম ভিতরের অবস্থা অনেক বাজে। প্রতিটি টেবিল অপরিস্কার, বললাম টেবিল পরিস্কার করে দেন। তারা বললো, এখানের কোনো ওয়েটার নেই। ক্যাশ কাউন্টার থেকে লোক ডেকে নিয়ে আসেন। তারপর লোক ডেকে আনলাম টেবিল এর আবর্জনা নিয়ে চলে গেল কিন্তু টেবিল মুছে বা পুরোপুরি পরিস্কার করে দিয়ে গেলো না। এখন আর কি করার অর্ডার তো দিয়ে ফেলছি।

তারপর বসলাম, টেবিলে কোনো টিস্যু ছিল না। টিস্যু চাওয়ার পর তিনজনকে একটি টিস্যু দিয়ে গেল। খাওয়া শেষে ক্যাশ কাউন্টারের সামনে গিয়ে দেখলাম স্লাইসবোর্ড এর উপরে তেলাপোকা হাটছে। আমি ভিডিও করছি তারা দেখে ফেলে। দেখার সাথে সাথে হাত দিয়ে তেলাপোকা টা ধরে নিচে ফেলে দেয়। এই হলো প্যারিস বাগেট এর অবস্থা।

এ বিষয়ে প্যারিস বাগেট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্ঠা করলে তাদের ব্যবহৃত মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

গত ২৬ জুলাই নগরীর মিশনপাড়া এলাকার প্যারিস বাগেটকে পণ্যের লেবেলিংয়ে মূল্য টেম্পারিং ও বিদেশি পণ্যের লেবেলে আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের নাম উলেখ্য না থাকায় ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকারের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ