১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, রাত ১:০৬

কায়েমপুরে মাছের খামারে লাশ

সংবাদচর্চা অনলাইনঃ

ফতুল্লার কায়েমপুর এলাকার একটি মাছের খামার থেকে কবির হোসেন (৫৫) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বিকেলে কায়েমপুর ও পূর্ব সস্তাপুরের মধ্যবর্তী জায়গায় থাকা মাছের খামারে এক ব্যক্তির লাশ ভাসতে দেখে এলাকাবাসি। পরে জানা যায় এটি একদিন আগে নিখোঁজ হওয়া কবির হোসেন।
পরিবার সূত্রে জানা যায়, কবির হোসেন মঙ্গলবার দুপুরে গরুর ঘাস সংগ্রহ করতে কাঁচি ও বস্তা নিয়ে বাসা থেকে গিয়ে আর ফিরে আসে নাই।

অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে সেই রাতে নিহতের বড় ছেলে বাদি হয়ে ফতুল্লা মডের থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেন। পরে গতকাল মাছের খামারে লাশ ভাসতে দেখে পরিবারের সদস্যরা নিশ্চিত হয় যে এটাই কবির।

এলাকাবাসি সূত্রে জানা যায়, কবির হোসেনের সাথে তার স্ত্রী ও ছেলে-মেয়ের দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন বিষয়ে ঝামেলা চলছিলো। কবির এসকল বিষয় গুলো ফতুল্লা থানা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফাইজুল ইসলামের কাছে জানান। পরে ফাইজুল ঈদের দিন পরিবারের সবাইকে মিলিয়ে দেন।

এ বিষয়ে ফাইজুল ইসলাম বলেন, তাদের পরিবারে অনেকদিন ধরেই বিভিন্ন ঝামেলা চলছে। তার স্ত্রী-সন্তান থাকার পরও তিনি আলাদা থাকতো। গত কয়েকদিন আগে কবির আমাকে পারিবারিক ঝগড়ার কথা বলে। পরে আমি পারিবারের সকলকে একত্র করে দিয়েছিলাম। মঙ্গলবার আমি শুনতে পাই কবিরকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। একটু পর জানতে পারলাম কবিরের লাশ ভেসে উঠেছে মাছের খামারে।

এ বিষয়ে নিহতের বড় ছেলে কামরুল হাসান মিঠু বলেন, আমার বাবা খুব সাধারন একজন মানুষ। কারো সাথে কোনো প্রকার শত্রুতা নেই। মঙ্গলবার দুপুরে বাসা থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। অনেক জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেছি। এলাকার সবাইকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। পরে কোথাও খুঁজে না পেয়ে থানায় গিয়ে সাধারন ডায়েরী করেছি।

ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করা ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের এসআই শরিফুল বলেন, লাশ ভেসে উঠেছে এমন খবর পেয়েই আমি সাথে সাথে সেখানে যাই। পরে ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ