২৩শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, দুপুর ১:০২

কলুষিত রাজনীতির পরিশুদ্ধি ঘটাতে আলেমদের ভূমিকা রাখতে হবে

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ

ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার আয়োজনে ” নবীন আলেম সংবর্ধনা ২০২১” অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার ১২ই মার্চ রোজ শিবু মার্কেটে অবস্থিত আই.এস.সি.এ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা শাখার সভাপতি আব্দুল্লাহ মুহাম্মাদ হাসান ও সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ আনোয়ার হোসাইন ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামি শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির জয়েন্ট সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মাদ উসমান গণী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা আনোয়ার হোসাইন জিহাদি।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা) থেকে শুরু করে ১৯২৩ সাল পর্যন্ত সমগ্র মুসলিম উম্মাহ খিলাফত ব্যবস্থার অধীনে ছিলো। আলেম-উলামায়ে কেরামগণ রাষ্ট্র পরিচালনা করতো। ইসলামী বিধান প্রতিষ্ঠিত থাকার কারণে মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা ছিলো। কিন্তু ইসলাম সমাজে প্রতিষ্ঠিত না থাকার কারণে এবং বিশাল আলেম সমাজ রাজনীতি বিমুখ হবার কারণে সমাজে অযোগ্য ও দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা নেতৃত্ব পর্যায়ে আসীন রয়েছে। যার কারণে আজ রাষ্ট্রের প্রতিটি সেক্টরে আজ দুর্নীতি চলছে। রাজনীতিকে সম্পূর্ণভাবে কলুষিত করে ফেলা হয়েছে। তাই কলুষিত রাজনীতির পরিশুদ্ধি ঘটাতে আলেমদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

তিনি আরো বলেন, উপমহাদেশের মাদ্রাসাগুলো মানুষের দ্বীন শেখার অন্যতম আশ্রয়স্থল। যার কারণে ইসলাম বিদ্বেষী চক্রের চক্ষুশূলে রয়েছে এই মাদ্রাসা শিক্ষা। মাদ্রাসার হাজারো কল্যাণকর দিকগুলো উপস্থাপন না করে কেবল নেতিবাচক দিকগুলো ষড়যন্ত্রমূলকভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে। যা কিনা সম্পূর্ণ নিয়মবহির্ভূত। ইসলাম অবশ্যই শিশুদের উপর অতিরিক্ত শাসনকে কখনোই সমর্থন করে না। কিন্তু কয়েকজন ব্যক্তির দায় একটি কল্যাণকর শিক্ষাব্যবস্থার উপর সম্পূর্ণভাবে চাপিয়ে দেয়া ইসলামবিরোধীর নামান্তর।

বিশেষ অতিথি তার বক্তব্যে বলেন , আলেমরা হলেন এ জাতির রাহবার। চাই তারা পৃথিবীর যেখানেই থাকুক না কেন সেখান থেকেই জাতিকে নেতৃত্বের দায়িত্ব পালন করতে হবে। আলেমদেরকে জনবান্ধব কার্যক্রমের সাথে আরো বেশি বেশি সম্পৃক্ত হতে হবে। ইসলামী আদর্শ বাস্তবায়ন এবং দেশ ও জাতির সার্বভৌমত্ব রক্ষার্থে আলেম সমাজকেই এগিয়ে আসতে হবে। 

অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত নবীন আলেমদেরকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয় এবং প্রধান অতিথির মোনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। 

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ