১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, রাত ৮:৫৮

আড়াইহাজারে শহীদ মিনারে জুতা পায়ে প্রবেশের হিড়িক !

আড়াইহাজার প্রতিনিধিঃ

আড়াইহাজার উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সকাল থেকে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হচ্ছিল। অনুষ্ঠানটি উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজন করা হয়। এর আগে শনিবার দিবাগত রাত ১২টা এক মিনিটে শহীদ ভেদিতে ফুলের তোড়া দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্যদিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু হয়।

তবে শহীদ মিনারে জুতা পায়ে শ্রদ্ধা জানানো ও ছবি তোলার হিড়িক ছিল। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে গিয়ে দেখা গেছে, বিশৃঙ্খল পরিবেশের মধ্যদিয়ে লোকজন ফুলের তোড়া দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করছিলেন। কেউ কেউ আবার জুতা পায়ে ছবি তোলছিলেন।

শহীদ মিনারে দায়িত্বরত দুই আসনার সদস্যকে পায়ে জুতা নিয়ে শহীদ ভেদিতে উঠে ছবি তুলতেও দেখা গেছে। এছাড়াও সাদা শার্ট পরিহিত এক যুবককে হাতে ক্যামেরা ও পায়ে জুতা পড়ে মুল ভেদিতে উঠে দীর্ঘক্ষণ ধরে ভিডিও করতে দেখা গেছে। সেখানে উপস্থিত অনেকের চোখেই এমন দৃশ্য নজড়ে আসে। অনেকেই এনিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন সাংবাদিকদের কাছে।

অনেকেই বলেন, বাংলা ভাষার জন্য যারা ১৯৫২ সালে শহীদ হয়েছেন। দিবসটি যেখানে আন্তর্জাতিকভাবে পালন করা হচ্ছে। ভাষা শহীদদের প্রতি আমাদের গভীরভাবে শ্রদ্ধা থাকা উচিৎ। ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান জানাতে এসে পায়ে জুতা নিয়ে ভেদিতে প্রবেশ করা কোনো ভাবেই মেনে নেয়া যায় না।

অনেকেই অভিযোগ করেন, পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কিংবা স্বেচ্ছাজীবি (বলানটিয়ার) নিয়োজিত করা হলে এমন দুঃখ জনক ঘটনা ঘটতো না। অনেকেই দাবি করেন, যারা এর আয়োজন করেছেন। তাদের গাফিলতির কারণেই ভাষা শহীদদের প্রতি এমন অসম্মান করা হয়েছে। যাদের অবহেলায় এমনটা ঘটেছে। তাদের বিচারের আওতায় আনারও অনেকেই দাবী জানান।

আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহাগ হোসেন বলেন, ‘মানুষ যদি সচেতন না হয়। এটি আমাদের গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় দিবস। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।’ 

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ