আজ বৃহস্পতিবার, ৬ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আড়াইহাজারে ঘোড়া প্রতিকের জোয়ার বইছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারায়নগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচন জমে উঠেছে। মিছিল মিটিংয়ে সরগরম হয়ে উঠছে নির্বাচনের মাঠ। প্রার্থীরা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাইছেন। দিচ্ছেন উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রæতি। নির্বাচনের কৌশল হিসাবে এক অপরকে ঘায়েল করার জন্য মিথ্যা ষড়যন্ত্রের জাল ফেলে মিডিয়াকে ব্যবহার করে অপ-প্রচার চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করে ঘোড়া প্রতিকের প্রার্থী সাইফুল ইসলাম স্বপন। তিনি বলেন, আমার জনপ্রিয়তার ইষান্বিত হয়ে প্রতিপক্ষের প্রার্থী নানা অপ-প্রচার চালিয়ে ভোটারদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন। তিনি ভোটারদের ২১ মে ভোট কেন্দ্রে নিয়ে নিজের পছন্দের প্রার্থীদের ভোট দেয়ার আহবান জানান।
আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তিনজন প্রার্থী থাকলে মুলত প্রতিদ্ব›িদ্বতা হবে দুই প্রার্থীর মধ্যে । প্রার্থীরা হলেন আড়াইহাজার উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ জালাল এবং তরুন প্রজন্মে প্রার্থী কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য সাইফুল ইসলাম স্বপন। এই উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামীলীগের কর্মী সমর্থকরা ইতিমধ্যে স্ব স্ব প্রার্থীর পক্ষে মাঠে নেমে নির্বাচনী প্রচারনা শুরু করেছেন। তবে নির্বাচনে স্থাণীয় সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ নজরুল ইসলাম বাবু তরুন প্রজন্মের প্রার্থী সাইফুল ইসলাম স্বপনকে সমর্থন দেয়ায় উপজেলার দশটি ইউনিয়ন ও দুটি পৌরসভার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও মেয়রদ্বয় সাইফুল ইসলাম স্বপনের পক্ষে মাঠে নেমে প্রচারনা চালাচ্ছেন। একই সাথে উপজেল আওয়ামীলীগের ৯০ শতাংশ নেতা কর্মী এবং দশটি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি , সাধারন সম্পাদকসহ যুবলীগ, ছাত্রলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ, কৃষকলীগ, মহিলা আওয়ামীলীগ, মহিলা যুবলীগসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা আট ঘাট বেধেঁ সাইফুল ইসলাম স্বপনের ঘোড়া প্রতিকের মাঠে নেমে ভোট চাইছেন। যে কারনে আড়াইহাজারের নির্বাচনী মাঠে ঘোড়া প্রতিকের পক্ষে জোয়ার নেমে এসেছে। অন্যদিকে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ জালালের পক্ষে প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা মমতাজ হোসেনসক কয়েকজন মাঠে নেমে এসেছেন। তবে তারা এক দুটি পথ সভা করে দায়িত্ব শেষ করেছেন। এছাড়া প্রবীন এই নেতাদের মাঠ পর্যায়ে তেমন কোন কর্মী সমর্থক নেই।
স্থানীয় ভোটারদের সাথে কথ বলে জানাযায়, র্দীঘ প্রায় ২৮ বছর পর আড়াইহাজার উপজেলার চরাঞ্চল হিসাবে খ্যাত ছয়টি ইউনিয়নের বাসিন্দা থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে দাড়িয়েছেন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগের সাবেক সংসদ সদস্য এমদাদুল হক মিয়ার পরে আর কেউ উপজেলা পদে নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করেননি। র্দীঘ ২৮ বছর পর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়ন থেকে নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন ঘোড়া প্রতিক নিয়ে সাইফুল ইসলাম স্বপন। যে কারনে চরাঞ্চলেরে ছয়টি ইউনিয়ন কালাপাহাড়িয়া, বিশনান্দী, হাইজাজাদী, খাককান্দা, উচিতপুরা, গোপালদী পৌরসভা ভোটারা জোটবদ্ব হয়েছেন তাদের এলাকায় জনপ্রতিনিধিতেক নির্বাচিত করার জন্য। এবারের উপজেলা নির্বাচনে এই ছয় ইউনিয়নের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, সাধারন ভোটাদের একটাই দাবি চেয়াম্যান হিসাবে সাইফুল ইসলাম স্বপনকে ঘোড়া প্রতিকে ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করার।
উচিতপুরা ইউনিয়নের ভোটার রাশেদুল ইসলাম জানান, র্দীঘ ২৮ বছর পর আমাদের পুর্বাঞ্চল থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে একজন প্রার্থী পাইছি। আমারা সবাই মিলে এক জোট হয়েছি এবার আমাদের কথা বলার জন্য সাইফুল ইসলাম স্বপনকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবো। যাতে এই চরাঞ্চলের ছয়টি ই্উনিয়নের রাস্তাঘাট ,ড্রেন কালভাড, সেতুরসহ স্কুল কলেজ মাদ্রাসার উন্নয়ন হয়।
বিশনান্দী ইউনিয়নের ভোটার সামসুল ইসলাম জানান, উপজেলা নির্বাচনে আমাদের প্রার্থী হচ্ছে ঘোড়া প্রতিকের সাইফুল ইসলাম স্বপন। আমার এবার ঐক্যবদ্ধ আছি। স্বপন তরুন প্রজন্মের প্রার্থী। তাকে নির্বাচিত করওেত পারলে সাংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবুর হাত শক্তিশালী হবে। শেখ হাসিনা যে স্মাট বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন স্বপনের মাধ্যমেই আড়াহাইহাজার উপজেলা হবে স্মাট উপজেলা। তিনি বলেন, সাইফুল ইসলাম স্বপনের পক্ষে জোয়ার নেমে এসেছে। আগামী ২১ মে জনগনের ভোটে স্বপন চেয়ারম্যান নির্বাচত হবে।
খাককান্দা ইউনিয়ন ভোটার জামসেদুল ইসলাম জানান, সাইফুল ইসলাম স্বপন একজন ভালো মানুষ। পৃুরো উপজেলার তৃনমুলের মানুষের মন কেড়ে নিয়েছেন তিনি। প্রতিপক্ষের প্রার্থী ও তার লোকজন স্বপনের জনপ্রিয়তায় ইষান্বিত হয়ে তার বিরুদ্ধে অ-প্রচার করছেন। তিনি বলেন, ভোটের মাঠে কর্মী সমর্থক না পেয়ে শাহজালালের লোকজন সাংসদ নজরুল ইসলাম বাবু ও চেয়ারম্যান প্রার্থী স্বপনের বিরুদ্ধে নানা কুৎসা রটিয়ে ভোটার বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন। তিনি আরো বলেন, আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি। আগামী ২১ মে আমাদের বিজয় হবে। অপ-প্রচারকারি, ষড়যন্ত্রকারিরা টিকতে পারাজিত হবে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহজালালের মোবাইল ফোনে একাধিক বার কল করে তাকে পাওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের সমর্থিত প্রার্থী সাইফুল ইসলাম স্বপন বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্যই আড়াইহাজার উপজেলা আওয়ামীলীগ আমাকে নির্বাচনে প্রার্থী করেছে। আমি ঘোড়া প্রতিক নিয়ে আড়াইহাজার উপজেলা পৃুর্ব-পশ্চিম যে ইউনিয়ন , পৌরসভা বা গ্রামে যাচ্ছি সেখানেই মানুষের ঢল নামছে। উৎসব মুখর পরিবেশে ভোটারা আমাকে গ্রহন করছেন। তারা বলছেন, আগামী ২১ মে নির্বাচনে ঘোড়া প্রতিকে ভোট দিয়ে আমাকে জয়যুক্ত করবেন। বিশেষ করে তরুন প্রজন্মের একজন প্রার্থী হিসাবে আড়াইহাজারের ছাত্র ও যুব সমাজ এবং আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করছে। আমার জনপ্রিয়তা দেখে প্রতিপক্ষের প্রার্থী নানা ষড়যন্ত্র ও কুটকৌশল করে আমার এবং মাননীয় হুইপেরে বিরুদ্ধে মিডিয়াকে ব্যবহার করে নানা কল্পকাহিনী লেখাচ্ছে। যার সাথে আমার বিন্দুমাত্র যোগসাজস নেই। মুলত ভোটারদের বিভ্রান্ত করার জন্য এসব কল্পকাহিনী বানাচ্ছে তারা। তিনি বলেন, আমার বিশ^াস ভোটাররা এসব অপ-প্রচারের বিশ^াস করেনা । তারা ঘোড়া প্রতিকের ভোট দেয়ার জন্য মুখিয়ে আছে। সাইফুল ইসলাম স্বপন বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা স্মাট বাংলাদেশ গড়ার যে প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন আমি চেয়ারম্যান নিবার্চিত হতে পারলে তা বাস্তবায়ন করার জন্য সর্বোচ্চ কাজ করে যাবো। তিনি বলেন, মাননীয় হুইপ নজরুল ইসলাম বাবুর যে নির্দেশনা দিবেন, তিনি মন্ত্রনালয় থেকে যে সব উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে আসবেন আমি সেই কাজ দ্রতগতিতে বাস্তবায়ন করবো। স্বপন বলেন, আগামী ২১ মে আড়াইহাজার সুষ্ঠ, সুন্দর ও অবাদ নির্বাচন হবে। সেই নির্বাচনে জনগনের ভোটে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে জনগনের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাবো। ##

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ