আজ রবিবার, ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সামসুর যোগদান নিয়ে সমালোচনা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

গেল নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ভোটে লড়ে জিতে যায় সামসুল আলম। নির্বাচিত হওয়ার কয়েক দিন পরে তিনি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগে যোগদান করেছেন। তার যোগদান নিয়ে আওয়ামী লীগের মধ্যে নানা আলোচনা সমালোচনা হচ্ছে। কেউ কেউ তাকে দলে মেনে নিতে পারছে না।
নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মাহফুজুর রহমান কালাম সামসুল আলমের আওয়ামীলীগের যোগদান কোন মতে দলীয় নিয়মানুযী হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন। এটাকে কোন যোগদান বলা যায় না। কেউ একজন আরেকজনকে ডেকে নিয়ে ফুলের তোড়া দিয়ে যদি বলেন আপনি আওয়ামীলীগের লোক হয়ে গেছেন এটা আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্রে নেই। তবে যদি কোন ব্যক্তি আওয়ামীলীগে যোগদান করেন বা করতে চান সে ক্ষেত্রে অবশ্যই কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী যোগ দিতে পারবেন। গত রবিবার বিকেলে তিনি এ কথা বলেন।

গত শনিবার দুপুরে সোনারগাঁ উপজেলা অডিটোরিয়ামে উপজেলা ৮টি ইউনিয়নের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যানদের সংবর্ধনা দেন উপজেলা চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক এডভোকেট সামসুল ইসলাম ভুইয়া। সেখানে দাওয়াত করা হয় নোয়াগাঁও ইউনিয়নের নব নির্বাচিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান সামসুল আলমকে। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এডভোকেট সামসুল ইসলাম ভুইয়া ও ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার ফেন্সী সামসুল আলমের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে আওয়ামীলীগে যোগদান করান। অথচ নোয়াগাঁও ইউনিয়ন যেটা সামসুল ইসলাম ভুইয়ার নির্বাচনী কেন্দ্র সেখানে নৌকার প্রার্থী চতুর্থ হোন। যা নিয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতাদের মধ্যে আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় উঠে। এছাড়া নৌকার পরাজিত প্রার্থী আব্দুর বাতেন এক ভিডিও বার্তায় তার পরাজয়ের পেছনে এডভোকেট সামসুল ইসলামের হাত রয়েছে বলে দাবি করেন।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ