১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, সকাল ৭:১৫

শ্রমিকদের প্রাণহানি মেনে নেওয়া যায় না:মন্ত্রী গাজী

সংবাদচর্চা রিপোর্ট:

রূপগঞ্জে সেজান জুস কারখানায় অগ্নিকান্ডে ৫২ জন মানুষ নিহত হওয়ার ঘটনায় কারখানাটি পরিদর্শন করেছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে রবিবার ১১ জুলাই সকালে নেতৃবৃন্দ কারখানায় এসে পৌছায়।

পরে তারা নিহত ও আহতদের স্বজনদের সাথে কথা বলেন এবং কারখানাটি ঘুরে দেখেন। এসময় স্থানীয় সংসদ সদস্য বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রূপগঞ্জে অগ্নিকান্ডে নিহত ও আহতদের বিষয়ে খোঁজ খবর রাখছেন। এঘটনায় তিনি খুব দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি আহত শ্রমিকদের সু চিকিৎসা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন। আমরা চেষ্টা করছি ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানোর ।

মন্ত্রী বলেন, শ্রমিকদের প্রাণহানি মেনে নেওয়া যায় না। কারখানা নির্মাণে কোনো অনিয়ম চলবে না। কেউ অনিয়ম করলে আমরা তার শাস্তি চাই। সরকার কাউকে ছাড় দেবে না। শ্রমিক ভাই ,বোনেরা আমাদের অর্থনীতি সচল রাখে। ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসন ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়িয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আমার দাবি থাকবে অগ্নিকান্ডে নিহতদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করেন ।

এসময় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ( ঢাকা বিভাগ) মির্জা আজম, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মৃনাল কান্তি দাস, এমপি, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সৈয়দ আব্দুল আউয়াল, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসনাত শহীদ বাদল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি আনোয়ার হোসেন, নারায়ণগঞ্জ -২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বাবু, রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শাহজাহান ভুঁইয়াসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য গত ৮ জুলাই বিকেল সাড়ে ৫টার পর সজীব গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজের ফুডস ( সেজান জুস নামে পরিচিত ) কারখানাটিতে আগুন লাগে।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ