আজ রবিবার, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শীর্ষ সন্ত্রাসী জাকির খানের জামিন নামঞ্জুর

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নারায়ণগঞ্জ পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ (১নং) সন্ত্রাসী জাকির খানের জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। রোববার সকালে ব্যবসায়ী নেতা সাব্বির আলম খন্দকার হত্যা মামলায় ১৯ বছর পর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতে জাকির খানকে হাজির করা হয়। এদিন সাক্ষী না আসায় তার জামিন আবেদন করা হলে বিচারক উম্মে সরাবান তহুরার আদালত জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এদিকে শীর্ষ সন্ত্রাসী হলেও জাকির খানকে রোববার সকালে জেলা কারাগার থেকে অন্য সব স্বাভাবিক আসামির মতোই আদালতে নিয়ে আসা হয়। তাকে আদালতে হাজির করার আগেই পুরো কোর্ট চত্বরে শত শত জাকির খানপন্থি বিএনপি নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় আদালত চত্বরের পরিস্থিতি এমন হয়ে দাঁড়ায় যে, আদালতের হাজত খানা থেকে মাত্র ১ মিনিটেরও কম সময়ের পায়ে হাঁটা দূরত্ব হলেও জাকির খানকে প্রিজন ভ্যানে তুলে জজ কোর্ট ভবনে নিতে হয়েছে পুলিশকে। জাকির খানকে এ সময় বুলেটপ্রুফ জ্যাকেট ও হেলমেট পরানো হয়। জাকির খানপন্থিরা এ সময় স্লোগান ও মিছিল করলে পুলিশ তাদের ওপর লাঠিচার্জ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কোর্ট পুলিশ কিংবা জেলা কারাগার কর্তৃপক্ষের কোনো ধারণাই ছিল না জাকির খান মূলত কোন পর্যায়ের সন্ত্রাসী। তাছাড়া শনিবার গভীর রাতেই পুরো কোর্ট এলাকা তথা ডিসি ও এসপি অফিসের প্রবেশ মুখে জাকির খানের বিশাল বিশাল ব্যানার ফেস্টুন সাঁটানো হয়েছিল।

অপরদিকে আদালত সূত্র জানায়, ২০০৩ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও বিআরটিসির তৎকালীন চেয়ারম্যান তৈমুর আলম খন্দকারের ছোটভাই ব্যবসায়ী নেতা সাব্বির আলম খন্দকার আততায়ীর গুলিতে নিহত হন। এ ব্যাপারে জাকির খানকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন তৈমুর আলম খন্দকার। এরপর জাকির খান নারায়ণগঞ্জ ছেড়ে পাড়ি জমান থাইল্যান্ডে। সম্প্রতি তিনি দেশে ফিরে আসেন। গত ২ সেপ্টেম্বর র্যা ব-১১ বিশেষ অভিযানে ডিএমপি ঢাকার ভাটারা থানার বসুন্ধরা এলাকা হতে বিদেশি পিস্তলসহ জাকির খানকে গ্রেফতার করে।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ