আজ সোমবার, ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শামীম ওসমানকে যা বললেন এড. মাছুম

স্টাফ রিপোর্টার :

সংসদ সদস্য শামীম ওসমানকে এক হাত নিলেন সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের অন্যতম নেতা ও নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি এ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান মাসুম। ঘুঘু দেখেছেন, ঘুঘুর ফাঁদ দেখেননি বলেও শামীম ওসমানকে হুশিয়ার করেছেন তিনি।

গতকাল সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়া শহীদ মিনারে ত্বকী হত্যার বিচার দাবিতে অনুষ্ঠিত মোমবাতি প্রজ্জোলন ও প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে শামীম ওসমানের উদ্দেশ্যে মাহবুবুর রহমান মাসুম বলেন, ‘আমরা ১০৭ মাস যাবত ত্বকী হত্যার বিচার চাইছি। আপনি ৯ বছর পর বললেন ‘আমিও ত্বকী হত্যার বিচার চাই।’ আবার বললেন, ‘তিনজন দর্শক ১০জন বক্তা কয়দিনের মধ্যে ত্বকীর বিচার দাবিতে আবার রাস্তায় নামবে। বিচার চাইলেন নাকি বিদ্রুপ করলেন? আপনি শামীম ওসমান জানেন না যে আপনি কোথায় চলে গেছেন। আপনি ঘুঘু দেখেছেন, ঘুঘুর ফাঁদ এখনো দেখেন নাই। মানুষের রাগ দেখেন নাই। মানুষের প্রতিবাদের ভাষা দেখেন নাই।’

শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জকে জিম্মি ও অশান্ত করে রেখেছে বলে মন্তব্য করে মাহবুবুর রহমান মাসুম বলেন, ‘আপনি ক্ষমতায় থেকে বড় বড় কথা বলছেন। নারায়ণগঞ্জকে জিম্মি করেছেন। নারায়ণগঞ্জের গণপরিবহনকে জিম্মি রেখেছেন। ভূমি দস্যুতার সাথে সম্পর্ক রেখেছেন। আপনি সারা নারায়ণগঞ্জকে অশান্ত রেখেছেন। সেই আপনি শামীম ওসমান ওইদিন ত্বকী হত্যার বিচার চাইলেন। নির্দেশ দিবেন খুনের, আবার বলবেন বিচার চাই। এই সহমর্মিতা আপনার মুখ থেকে আমরা চাই না। অপনাকে আমরা ঘৃণা করি। আপনাকে নারায়ণগঞ্জবাসী ঘৃণা করে। আপনাকে গণমাধ্যম কর্মীরা ঘৃণা করে।’

সম্প্রতী সাংসদ শামীম ওসমানের দেয়া এক বক্তব্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘তিনজনে মিলে প্রতিবাদের কথা বললেন? নমরুদকে তো একটা মশায় মেরেছিলো। আপনি শামীম ওসমানতো একটা মশার মতই। মনে রাখবেন এমন অধপতন আপনার হবে, নারায়ণগঞ্জবাসী দেখবে এসব খুনের বিষয়ে আপনার ভুমিকা। আপনি সময় পাবেন না। আপনার সময় শেষ।’

ত্বকী হত্যায় শামীম ওসমান আদেশ দিয়েছে এবং তার সৎ সাহস নেই বলে মন্তব্য করে মাসুম বলেন, ‘আপনি খুনের আদেশ দিলেন, খুন হলো। খুনের একটা ইমোশনকে কেন্দ্র করে প্রধানমন্ত্রীকে ভায়েস্ট করলেন। আবার সেদিন বললেন আমি ত্বকী হত্যার বিচার চাই। আবার এক বছর আগে বললেন ত্বকী হত্যা নিয়ে আমি সাংবাদিক সম্মেলন করবো। আপনার বুকে এতো পাটা? আপনার বুকের পাটা এতো না যে, আপনি ত্বকী হত্যায় সংবাদ সম্মেলন করে ত্বকীর বেপারে কোন কিছু উপস্থাপন করবেন। সেই সাহস ক্ষমতা আপনার নাই। খুব টেকনিক্যালি বললেন, ‘প্রয়োজনে বিচার বিভাগীয় তদন্ত চাই।’ কেন? র‌্যাব যা বলেছে, খসড়া চার্জশীটে যা দিয়েছে, সেটা কী আপনার নলেজে নাই? তদন্তকারী কর্তৃপক্ষকে একবারও তো বললেন না যে, আপনারা আসামীকে গ্রেফতার করে সমস্ত মামলার ঝামেলা শেষ করেন! আপনি বললেন বিচার বিভাগীয় তদন্ত। কোনদিকে দৃষ্টি ঘোরাতে চাচ্ছেন ? জানতে চাই শামীম ওসমান।

ত্বকী হত্যায় র‌্যাবের খসরা চার্জসিট প্রসঙ্গে মাহবুবুর রহমান মাসুম বলেন, ‘আমি বলিনি, র‌্যাব বলেছে, র‌্যাব কে? তদন্তকারী সংস্থা। কে নিয়োগ দিয়েছে? হাইকোর্ট নিয়োগ দিয়েছে। তারা তদন্ত করেছে। তাদের একজন এডিজি জিয়াউল হাসান গণমাধ্যম কর্মীদের ডেকে নিয়ে বলেছে যে, ত্বকী হত্যায় ১১ জনের কিলিং মিশন ছিলো। কার নির্দেশে কে করেছে সব কথাই সেখানে উঠেছে। খসড়া চার্জসিট আমাদের হাতে হাতে দিয়ে দিয়েছে। আর আপনি শামীম ওসমান বলেন যে, ত্বকী হত্যার কিসের খসরা চার্জসিট। দেখতে চান? আমাদের কাছে আছে। বইয়ের মধ্যে আছে। দেখে নিবেন।’

নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে শামীম ওসমান নৌকা এবং মেয়র আইভীর বিরোধীতা করেছে দাবি করে মাসুম বলেন, ‘বেশি বাড়াবাড়ি করবেন না। বেশি বাড়াবাড়ি ভালো না। আপনি হাতির উপর উঠে নৌকা ডুবাতে চেয়েছেন। নৌকাতো জিতেছে। আমরা মেয়র আইভীর পক্ষে কাজ করেছি। আমাদের কাছে মার্কা ফ্যাক্টর না। আমরা আইভীকে দেখে ভোট দিয়েছি। আপনি নৌকার বিরোধীতা করেছেন। আপনি বলেছেন আপনি নৌকার পক্ষে আছেন। কখন বলেছেন? নির্বাচনের ৬দিন আগে। এসব কথা বলে আপনি আপনার প্রত্যেকটা লোককে তৈমূর আলম খন্দকারের হাতির পক্ষে কাজ করিয়েছেন। আবার আপনি ওইদিন বলেছেন, “তারা নাকি বলে প্রধানমন্ত্রী আমাকে দিয়ে তৈমূর সাহেবকে দাঁড় করিয়েছে।” আবার প্রধানমন্ত্রীকে টানেন কেন? প্রধানমন্ত্রীর কথাতো কেউ বলে নাই। প্রধানমন্ত্রীইতো আইভীকে মনোনয়ন দিয়েছে। এসব কথা বলে মানুষের সহানুভূতি পাবেন না। আপনার দিন ফুড়িয়ে গেছে। যারা ষড়যন্ত্রকারী, যারা সেলিনা হায়াত আইভীর বিরুদ্ধে জিউস পুকুরসহ বিভিন্ন ইস্যু তৈরী করে সমালোচনা প্রপাগান্ডা ছড়িয়েছে তিনজনের নাম কেন্দ্রে পাঠিয়েছেন, আইভীকে অনেক অপদস্ত করেছেন। কিন্তু জনগণ কিন্তু ভুল করেন নাই। আমরা ভুল করি নাই। সাংস্কৃতিক জোট ভুল করে নাই। অন্যান্য সংগঠন ভুল করে নাই। আমাদের কাছে মার্কা কোন বিষয় ছিলো না। আমাদের মার্কা মেয়র আইভী।’

সংসদ ভবনে শামীম ওসমানকে প্রধানমন্ত্রী ধন্যবাদ জানানোর বিষয়ে যেই কথা উঠেছে, সেই প্রসঙ্গেও কথা বলেছেন মাহবুবুর রহমান মাসুম। তিনি বলেন, ‘আরে ভাই সংসদেতো ৩০০ মেম্বার বসছে। সংসদে বিট করে অন্তত সাড়ে পাঁচশ সাংবাদিক। আপনার মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়া দিয়েছে! দোয়া দেয়নি, অনেক দূর থেকে দেখে বলেছে ‘থ্যাংক ইউ’। মানে এবার তুমি বিদায় হও। অনেক দেখাইছো। আর খেলার চেষ্টা করো না। এই কথা বোঝেন না কেন? এটাই প্রধানমন্ত্রীর কথা। কয়েকদিনের মধ্যেই এর বাস্তবতা দেখতে পারবেন। অপেক্ষা করেন, ত্বকী হত্যার বিচার যিনি বন্ধ করিয়েছেন, ত্বকী হত্যার বিচারের কথা তিনিই বলছেন। আমি তা চোখ দিয়ে দেখতে পাচ্ছি। সুধু সময়ের অপেক্ষা। ত্বকী হত্যার বিচার এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। আমি বিশ্বাস করি, এই সরকারের আমলেই ত্বকী হত্যার বিচার হবে।’

তিনি বলেন, ‘আপনি কবরী সারোয়ারের গায়ে হাত তুলেছেন বাস ভাড়াকে কেন্দ্র করে। আপনি তখন কিছুই ছিলেন না। প্রতিবাদ করলেই রফিউর রাব্বির দোষ হয়ে যায়? এটার রিটার্ন দিয়েছেন তার ছেলে ত্বকীকে হত্যা করে। আর এখন আপনি বলেন ত্বকী হত্যার বিচার চান। এসকল কথা বলে আপনি আর বিভ্রান্ত সৃষ্টি করবেন না। ত্বকী হত্যার বিচার প্রকৃত পক্ষে আমরা চাই।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ত্বকী হত্যার বিচারের আকুতি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই, আপনি এই পরিবারকে অনেক দেখেছেন, এবার নারায়ণগঞ্জবাসীকে দেখুন। এই পরিবার আপনাকে কিছু দেয়নি। শেষ পর্যন্ত হাতি দিয়েছে। হাতির উপর চলিয়া মর্দ হাটিয়া চলিল। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি নারায়ণগঞ্জবাসীর মনের কথাটা বুঝুন।’

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ