আজ শুক্রবার, ১৩ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

‘লক্ষাধিক লোকের সমাবেশ ঘটবে’

টি.আই.আরিফ

রূপগঞ্জে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে যৌথ আলোচনা সভা করেছে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সোমবার ১৬ জানুয়ারি বিকালে মুড়াপাড়া বাজারে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সভা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ,বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক,এমপি। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার জন্য রূপগঞ্জবাসী ধন্য। নেত্রীকে ধন্যবাদ তিনি আমাদের রূপগঞ্জে আসবেন। আমরা নেত্রীকে বরণ করার জন্য প্রস্তুত আছি। আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কোন উপজেলায় এক মাসের মধ্যে দুইবার যাননি। সেটা রূপগঞ্জে হচ্ছে। সেদিন নেত্রীর জনসভায় রূপগঞ্জ থেকে লক্ষাধিক লোকের সমাবেশ ঘটবে।

তিনি আরও বলেন, রূপগঞ্জে মেট্টোরেল হচ্ছে। মেট্টোরেলের মাধ্যমে রূপগঞ্জ থেকে প্রতিদিন মানুষ ঢাকায় গিয়ে অফিস করে আবার বাড়ি ফিরে আসতে পারবে। নেত্রীর কাছে আমরা সবই পেয়েছি। এবার নেত্রীকে আমরা দেখিয়ে দেবো রূপগঞ্জের মাটি শেখ হাসিনার ঘাঁটি। প্রত্যেকটা ইউনিয়ন ,পৌরসভা এবং ওয়ার্ড থেকে আমাদের কর্মী সমর্থকরা মিছিল নিয়ে যাবে। বাস,লঞ্চ থাকবে।
রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল হাই। তিনি বলেন, আমরা গর্বিত, নেত্রী আমাদের উপজেলা এক মাসের মধ্যে দুইবার আসবে। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে নেত্রীকে অভিনন্দন। প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশ আমরা সফল করবো।
রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ শাহজাহান ভুঁইয়া বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রূপগঞ্জে অনেক উন্নয়ন করেছেন। কোন গ্রুপিং চলবে না। সমাবেশে যাওয়ার জন্য আমাদের বাস,লঞ্চ থাকবে। সবাই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যাবেন।

রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গাজী গোলাম মর্তুজা পাপ্পা বলেন, সবচেয়ে বড় মিছিল নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশে যাবো। ছাত্র,যুবক, সাধারণ মানুষ আমার সাথে থাকবে।
কাঞ্চন পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম বলেন, মেয়র হিসেবে আমি ১০ হাজার লোক নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশে যাবো।

কাঞ্চন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল কলি বলেন, আমি ১০ হাজার লোক নিয়ে যাবো প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশে।
মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ আলমাছ বলেন, মুড়াপাড়া থেকে আমি ৫ হাজার লোক নিয়ে যাবো প্রধানমন্ত্রীর জনসভায়।
উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা ফেরদৌসী আলম নীলা বলেন, রূপগঞ্জ ইউনিয়ন থেকে আমরা সবাই মিলে ১৫ হাজার লোক নিয়ে যাবো। আমাদের এলাকায় প্রধানমন্ত্রী আসবে এখানে সবাই যাবে।
রূপগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ ছালাউদ্দিন ভুঁইয়া একই কথা বলেন।

কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ জাহেদ আলী বলেন, চানপাড়া এবং কয়েতপাড়া মিলে আমি ১৫ হাজার লোক নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যাবো।

গোলাকান্দাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান তুহিন বলেন, গোলাকান্দাইল থেকে আমরা ৫ হাজার লোক নিয়ে যাবো।

ভুলতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুল হক বলেন, আমি চেয়ারম্যান হিসেবে ভুলতা থেকে ১০ হাজার লোক নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যাবো।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো: আবুল হোসেন খাঁন বলেন, ভোলাব থেকে আমরা ১০ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে যাবো। আমাদেরকে একটু সহায়তা করবেন। আমাদের এলাকার মানুষ গরিব।

যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির জনশক্তি ও কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক শাহিন মালুম বলেন, দাউদপুরের চেয়ারম্যান ষড়যন্ত্র করছে। আমরা তার বহিষ্কার চাই। শেখ হাসিনার জন্য বাংলাদেশ ধন্য, গাজী সাহেবের জন্য রূপগঞ্জ ধন্য। নেত্রীর সমাবেশে আমরা দাউদপুরের নেতৃবৃন্দ মিলে ১০ হাজার লোক নিয়ে যাবো। দাউদপুরের মানুষ গাজী সাহেবকে অনেক ভালোবাসে।

রূপগঞ্জ উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সীমারানী পাল বলেন, মহিলা লীগ অতীতেও সমাবেশে লোক নিয়ে গেছে। এবার প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় আমরা রূপগঞ্জ উপজেলা মহিলা লীগ ১০ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে যাবো।
রূপগঞ্জ যুব মহিলা লীগ সভাপতি ফেরদৌসী আক্তার রিয়া,সাধারণ সম্পাদক সেলিনা আক্তার রিতা বলেন, ঢাকায় আমরা অনেক বড় মিছিল করেছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রূপগঞ্জে আসবেন তাই আমরা রূপগঞ্জ উপজেলা যুব মহিলা লীগ ১০ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে যাবো।

উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান শাহীন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের নেতা গোলাম দস্তগীর গাজী সাহেবকে অনেক স্নেহ করেন। আমরা রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগ গাজী সাহেবের মান রাখবো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় আমরা রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের ১৫ হাজার নেতাকর্মী নিয়ে যাবো। স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ইমন হাসান খোকন বলেন, রূপগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ অনেক শক্তিশালী । আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় রূপগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের ১৫ হাজার নেতাকমী,সমর্থক নিয়ে যাবো।

রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রিয়াজ আহমেদ ,সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ ভুইয়া মাছুম বলেন, গাজী গোলাম মর্তুজা পাপ্পা ভাই রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগকে দেখাশুনা করেন। আমরা রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ ২০ হাজার ছাত্র,জনতা নিয়ে পাপ্পা ভাইয়ের সাথে মিছিল নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশে যাবো।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মো: আমান উল্যাহ মিয়া বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানসহ ১২শ লোক নিয়ে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সভাবেশে যাবো।
আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ¦ হাবিবুর রহমান বলেন, তারাব থেকে আমরা ১৫ হাজার লোক নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠানে যাবো।

অনুষ্ঠানে রূপগঞ্জ রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শেখ সাইফুল ইসলাম, মশিউর রহমান তারেক, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মো: কামাল হোসেন কমল, ত্রান ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সৈয়দ মারফত আলী, দপ্তর সম্পাদক আলতাফ হোসেন গোলবক্স, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মান্নান মুন্সি, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাছুম চৌধুরী অপু, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মো: আবুল কালাম ভুঁইয়া, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মো: এমায়েত হোসেন, শ্রম সম্পাদক মো: মতিউর রহমান আকন্দ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো: আব্দুল মোমেন, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ ফয়সাল আহমেদ , সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হারেজ, মো: ফারুক মিয়া, হাফিজুর রহমান ভুঁইয়া সজিব, সহ-দপ্তর সম্পাদক মো: ওবায়দুল মজিদ ভুঁইয়া জুয়েল, সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো: তানভীর হাই, কোষাধক্ষ্য মো: মুশফিকুর রহমান রিপন, সদস্য রমাকান্ত সরকার, মো: নূরে আলম, মো: মনির হোসেন ভিপি , মো: মেজবাহ উদ্দিন বাচ্চু, দীন মোহাম্মদ দিলু, হাসান আশকারী, মো: হাফিজুর রহমান (ডহরগাঁ) , মো: নাঈম ভুঁইয়া, আনছর আলী, ইউপি সদস্য রেহেনা আক্তারসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ