মোহাম্মদপুরে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৬

35
মোহাম্মদপুরে ডাকাতির

মোহাম্মদপুরে ডাকাতির

সংবাদচর্চা রিপোর্ট:

রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানা এলাকা হতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ ০৬(ছয়) জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-২।

অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার এবং আইনের আওতায় আনা এলিট ফোর্স র‌্যাবের অন্যতম প্রধান গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব ও চলমান আভিযানিক কর্মকান্ড। প্রতিষ্ঠালগ্ন হতে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার এবং সন্ত্রাস প্রতিরোধে এলিট ফোর্স র‌্যাবের বিশেষ অভিযানসমূহ দেশব্যাপী ব্যাপকভাবে প্রশংসিত। এলিট ফোর্স র‌্যাব প্রতিষ্ঠার পর হতে অদ্যবধি অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আপোষহীন এবং নিরলস গ্রেফতার অভিযান চলমান রয়েছে। দেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে জনগণের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ এবং আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নয়নের লক্ষ্যে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার এবং আইনের আওতায় আনার জন্য র‌্যাবের ব্যাপক গোয়েন্দা নজরদারী অব্যাহত আছে।

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাবের আভিযানিক দল গোয়েন্দাসূত্রে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে অদ্য ১৪/০৬/২০১৮ খ্রিঃ তারিখ আনুমানিক রাত ০১.০৫ ঘটিকায় র‌্যাব-২ এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল ঢাকা মহানগরীর মোহাম্মপুর থানাধীন রায়ের বাজারস্থ সাদেক খান কৃষি মার্কেটের বিপরীত পার্শ্বে বৃদ্ধিজীবি কবরস্থানের দেয়াল সংলগ্ন ফাঁকা ও অন্ধকারাচ্ছন্ন জায়গায় দেশীয় অস্ত্র-সরঞ্জামাদিসহ ডাকাতির প্র¯ু‘তিকালে সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের ০৬(ছয়) জন সক্রিয় সদস্যকে আটক করে। আটককৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, তারা একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। বিশেষ করে দিনের বেলায় তারা ছোট ছোট দলে বিভক্ত হয়ে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় নগদ অর্থ, মোবাইল, ল্যাপটপ, ভ্যানিটি ব্যাগ ইত্যাদি মুল্যবান সামগ্রী ছিনতাই করে। এছাড়াও রাতের বেলায় তারা এরকম দুই বা ততোধিক দল একত্র হয়ে নির্দিষ্ট ফ্ল্যাটে বা ফাঁকা বাড়ীতে গ্রিল কেটে ও তালা ভেঙ্গে প্রবেশ করে ডাকাতি করে থাকে। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে, যা যাচাই বাছাই করে ভবিষ্যতেও র‌্যাব-২ কর্তৃক এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, আলীনুর চৌধুরী(২০), পিতা-মৃত ওয়ারেশ চৌধুরী,  মোঃ সৌরভ খান(১৯), পিতা- মৃত ইউনুছ খান,   মোঃ ইমরান মিয়া(৩৬), পিতা-মৃত ইসমাইল মিয়া, মোঃ শান্ত(২০), পিতা-মোঃ বাবুল হাওলাদার, মোঃ রতন(১৮), পিতা- মৃত আঃ রউফ খন্দকার,  মোঃ মুছা(১৯), পিতাঃ মোঃ সোহেল,

উদ্ধারকৃত মালামাল:  চাপাতি – ০১ (এক) টি, ছুরি – ০২ (দুই) টি, করাত ছুরি – ০১ (এক) টি, মোবাইল – ০১ (এক) টি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here