আজ শুক্রবার, ১৩ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

ঐশ্বরিয়াকে মা দাবি করলেন ২৯ বছরের সংগীত কুমার

মা

মা

বিনোদন ডেস্ক : ঐশ্বর্যা রাইকে নিজের জন্মদাত্রী মা বলে দাবি করে সংবাদের শিরোনামে অন্ধ্রপ্রদেশের এক যুবক। ২৯ বছর বয়সী ওই যুবকের নাম সঙ্গীত কুমার। থাকেন বিশাখাপত্তনমে। সম্প্রতি কর্নাটকের মেঙ্গালুরুতে সংবাদমাধ্যমের কাছে তিনি দাবি করেন, প্রাক্তন বিশ্বসুন্দরী ও বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনই তাঁর মা এবং তিনি এ বার তাঁর সঙ্গেই থাকতে চান।

উটকো এক লোক দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে পাকিস্তানি নায়িকা মিরার স্বামী হিসেবে দাবি করে আসছিলেন। এ নিয়ে সাত বছর ধরে পাকিস্তানের উচ্চ আদালতে অনেক মামলা মোকদ্দমাও চলেছে। সম্প্রতি আদালত মিরাকে এই মামলা থেকে নিষ্পত্তি দিয়েছে। অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে নায়িকা প্রমাণ করতে পেরেছেন যে তাঁর স্বামী হিসেবে দাবি করা আতিক নামের সেই ব্যক্তিকে তিনি কোনো দিন বিয়ে করেননি।

আর ভারতীয় তারকা ধনুশকে এক দম্পতি নিজেদের সন্তান হিসেবে দাবি করে তো নিজেরাই রীতিমতো গণমাধ্যমের ‘তারকা’ হতে চাইছিলেন। সেই মামলাতেও জয় হয়েছে ধনুশের। এবার ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চনকে নিজের মা দাবি করছেন ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের এক যুবক। ২৯ বছর বয়সী এই যুবকের নাম সংগীত কুমার।

সংগীত কুমারের দাবি, ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন তাঁর জন্মদাত্রী মা। বিশ্বসুন্দরীর মুকুট জেতার ছয় বছর আগে, অর্থাৎ ১৯৮৮ সালে লন্ডনে সংগীত কুমারকে তিনি জন্ম দেন। সাংবাদিকদের ওই যুবক বলেছেন, ১৯৮৮ সালে লন্ডনে কৃত্রিম প্রজনন পদ্ধতিতে তাঁর জন্ম।  যে সময় নিজের জন্ম বলে ওই যুবকের দাবি, তখন ঐশ্বর্যার বয়স ছিল ১৪ বছর।

সংগীত আরও দাবি করেন, জন্মের পর দুই বছর তিনি ঐশ্বরিয়ার মা বিন্দা রাইয়ের কাছে মানুষ হয়েছেন। বলেন, ‘আমার নানার নাম কৃষ্ণরাজ রাই ও মামার নাম আদিত্য রাই।’ ‘আমার মা (ঐশ্বরিয়া) ২০০৭ সালে অভিষেক বচ্চনকে বিয়ে করেন। কিন্তু এখন তাঁরা আলাদা আছেন। আমার মা একা থাকেন। আমি চাই মা ম্যাঙ্গালুরুতে আমার সঙ্গে এসে থাকুক। ২৭ বছর ধরে আমি নিজের পরিবার থেকে আলাদা আছি। আমি আমার মাকে অনেক মিস করি।’

সংগীত সংবাদমাধ্যমকে জানান, পর্যাপ্ত পরিমাণ তথ্যের অভাবে তিনি এত দিন তাঁর মায়ের কাছে পৌঁছাতে পারেননি। ছোটবেলা থেকেই নাকি আত্মীয়স্বজনদের অনেক অবহেলা সহ্য করতে হয়েছে তাঁকে। এখন তাঁর প্রচণ্ড মাথাব্যথা হয় বলেও জানান। অবশ্য সংগীত কুমার তাঁর বাবার ব্যাপারে কোনো কথা বলেননি। ঐশ্বরিয়া যে তাঁর মা এ বিষয়ে কোনো প্রমাণও উপস্থাপন করতে পারেননি। তাঁর একটাই দাবি, নিজের জীবনে ‘মা’ ঐশ্বরিয়াকে ফিরে পেতে চান।

 

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ