আজ শুক্রবার, ১৩ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

বিএনপির ফাঁকা আওয়াজ!

স্টাফ রিপোর্টার :

ঐক্যবদ্ধ হয়ে ঢাকায় যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন বিএনপি নেতারা। শেষ পর্যন্ত তারা ঢাকায় গেলেও ঐক্যবদ্ধ হতে দেখা যায়নি অনেককেই। দলটির নেতাকর্মীরা বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত হয়ে ঢাকায় গিয়েছেন। এমনকি একই কমিটির নেতা হয়েও সমাবেশে অবস্থান করেছেন পৃথক ভাবে, পৃথক ব্যানারে। জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মামুন মাহমুদ তার নিজের নামে ব্যানার করে কিছু সংখ্যক লোক নিয়ে পৃথক ভাবে ঢাকার সমাবেশে যোগ দিয়েছেন। তা নিয়ে আলোচনা এখন সমালোচনায় রূপ নিয়েছে।

অন্যদিকে, এই গণসমাবেশ ঘিরে নারায়ণগঞ্জের বিএনপি নেতারা বেশ হুংকার ছেড়েছিলেন। প্রশাসনের পাশাপাশি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের নেতাদের প্রতিও গরম বক্তব্য রেখেছিলেন। ১০ তারিখের সমাবেশের পর দেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট বদলে যাবে বলেও ঘোষণা দিয়েছিলেন বিএনপি নেতাদের কেউ কেউ। তবে, শেষ পর্যন্ত এমনটা দেখা যায়নি। তাছাড়া, নারায়ণগঞ্জ থেকে লক্ষাধিক লোক নিয়ে ঢাকার গণসমাবেশে যোগ দেবেন বলে ঘোষণা দেয়া হলেও শেষ পর্যন্ত সেই লক্ষ্য পূরণ করতে পারেনি তারা। তাই নারায়ণগঞ্জের বিএনপি নেতাদের এযাবৎ দেয়া বক্তব্য ও হুংকারকে আওয়ামী লীগ নেতারা ফাঁকা আওয়াজ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

জানা গেছে, গতকালের গণসমাবেশে ১০ দফার দাবি উত্থাপন করেছে বিএনপির নীতিনির্ধারকরা। বলেছেন, ১০ দফার দাবির প্রেক্ষিতেই আগামী দিনের আন্দোলন সংগ্রাম চলমান থাকবে। আগামীতে রাজপথ দখলে রাখবেন বলে বিএনপির নেতারা হুংকার ছেড়েছেন।

তবে, গতকাল ১০ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জের রাজপথ ছিলো আওয়ামী লীগের দখলে। এদিন বিএনপি নেতাদের কাউকে নারায়ণগঞ্জে দেখা যায়নি। কেননা, বিএনপির কর্মসূচি ছিলো ঢাকায়। তারা ঢাকার গণসমাবেশে থাকাবস্থায় নারায়ণগঞ্জের রাজপথ দখলে রাখে আওয়ামী লীগ নেতারা। যদিও নারায়ণগঞ্জ বিএনপি ঢাকায় অবস্থান করাকালীন আওয়ামী লীগ নেতাদের নারায়ণগঞ্জের রাজপথে থাকার কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন থেকে যায়।

আওয়ামী লীগ নেতাদের অভিযোগ, বিএনপি সমাবেশের নামে নৈরাজ্য করে থাকে, এমন শঙ্কা থেকেই তা প্রতিরোধের জন্য নারায়ণগঞ্জের গুরুত্বপূর্ন এলাকায় অবস্থান নিয়েছে আওয়ামী লীগ নেতারা। আগামীতে বিএনপি কর্মসূচি ঘোষণা করে ভয় দেখাতে চাইলেও তা হবে অর্থহীন। তাই বিএনপির কর্মসূচি নিয়ে চিন্তিত নয় আওয়ামী লীগ। কেননা, বিএনপি নেতারা এক কাতারে দাঁড়াতে পারেনি। দলটির মধ্যে নেতায় নেতায় বিভাজন রয়েছে। তাই বিএনপি মুখে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলন সংগ্রামের কথা বললেও কার্যত তারা ফাঁকা আওয়াজ তুলে থাকেন বলে মনে করেন আওয়ামী লীগ নেতারা।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ