আজ শুক্রবার, ১৩ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

ফতুল্লায় ২ সন্তানসহ গৃহবধুকে নিয়ে পালালো

স্টাফ রিপোর্টার : নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ২ সন্তানসহ এক গৃহবধুকে নিয়ে পালিয়েছে মাদ্রাসা শিক্ষক নূর ইসলাম রুবেল। এই ঘটনায় তিন জনের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন ওই গৃহবধুর পিতা মো. দিদার উদ্দিন। গতকাল এই মামলার এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মামলার আসামীরা হলো, ফতুল্লার ফাজেলপুর তালিমুল কোরআন নূরানী ক্যাডেট মাদ্রাসার শিক্ষক নূর ইসলাম রুবেল (৩৬) তার পিতা আলীগঞ্জ তিন রাস্তার মোড় এলাকার নয়ন শিকদার (৫৫) এবং নয়ন শিকদারের স্ত্রী চম্পা বেগম (৫০)। এর মধ্যে চম্পা বেগমকে গতকাল গ্রেফতার করা হয়।

বাদি দিদার উদ্দিন মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন, তার মেয়ে আয়েশা আক্তার (২৮) তার ২ শিশু সন্তানকে নিয়ে দাপা ইদ্রাকপুর রুশেন হাউজিং এলাকায় বসবাস করতো। আয়েশার বড় আদিয়ান (৫)কে ফতুল্লার ফাজেলপুর তালিমুল কোরআন নূরানী ক্যাডেট মাদ্রাসায় ভর্তি করেন। ওই মাদ্রাসার শিক্ষক ছিলেন নূর ইসলাম রুবেল। সেই সুবাধে রুবেল তার বাসায় এসে শিশু আদিয়ানকে প্রাইভেট পড়াতো এবং আয়েশার সাথে বিভিন্ন অযুহাতে কথা বার্তা বলতে শুরু করে। এক পর্যায়ে গত ৭ জানুয়ারি দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নূর ইসলাম রুবেল তার বাসায় এসে আর্থিক ফায়দা নেয়ার লক্ষ্যে মামলার ২ ও ৩নং আসামীর সাথে যোগসাজসে বাদীর ঘর থেকে নগদ ৮ লাখ টাকা ও ১০ ভরি ওজনের স্বর্নালংকার সহ আয়েশাকে ফুসলিয়ে ও প্রলোভন দেখিয়ে তার দুই শিশু সন্তান আদিয়ান ও আবরারকে নিয়ে কাউকে কিছু না জানিয়ে চলে যায়। পরবর্তীতে মামলার বাদী এই বিষয়ে নূর ইসলাম রুবেলের বাবা মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলেও তারা তথ্য গোপন রাখে। এই ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন আয়েশার বাবা দিদার উদ্দিন। গতকাল এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাদীর মেয়ে ও ২ নাতি সহ নগদ টাকা ও স্বর্নালংকার উদ্ধার হয়নি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জানান, ভিকটিমদের উদ্ধার এবং আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ