৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, সন্ধ্যা ৭:৩৬

পরীমনির আসল তথ্য প্রকাশ

সংবাদচর্চা রিপোর্ট:

নায়িকা পরীমনির আসল পরিচয় প্রকাশ করেছে র‌্যাব-১। গত ৪ আগস্ট রাজধানীর বনানী এলাকায় বিকাল হতে রাত পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করে শামসুন্নাহার স্মৃতি ওরফে স্মৃতিমনি ওরফে পরীমনি (২৬) কে গ্রেফতার করে।
তার বাবার নাম মৃত মনিরুল ইসলাম। তার বাড়ি পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া থানায় ।

গ্রেফতারকৃত শামসুন্নাহার স্মৃতি ওরফে স্মৃতিমনি ওরফে পরীমনিকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, পিরোজপুরের কলেজে (এইচএসসি) জীবনে অধ্যায়ণরত অবস্থায় চিত্র জগতে প্রবেশ করেন। তিনি ২০১৪ সালে চিত্র জগতে অন্তর্ভূক্ত হন। এ পর্যন্ত তিনি ৩০টি সিনেমা এবং ৫/৭টি টিভিসি’তে অভিনয় করছেন। পিরোজপুর হতে ঢাকায় এসে চিত্র জগতে একটি দৃঢ় অবস্থান তৈরীতে গ্রেফতারকৃত মোঃ নজরুল ইসলাম রাজ এর একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল বলে তিনি জানান।

পরীমনি ২০১৬ সাল হতে অ্যালকোহলে আসক্ত হয়ে পড়েন। তার ফ্ল্যাট হতে বিভিন্ন ব্রান্ডের বিদেশী মদ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি নিয়মিত এ্যালকোহল সেবন করে থাকেন। মাত্রাতিরিক্ত সেবনের চাহিদা মেটানোর লক্ষে বাসায় একটি মিনি বার স্থাপন করেছেন। মিনি বার থাকায় তার ফ্ল্যাটে ঘরোয়া পার্টি অয়োজন পরিপূর্ণতা পেত বলে তিনি জানান। গ্রেফতারকৃত মোঃ নজরুল ইসলাম রাজসহ আরও অনেকে তার বাসায় অ্যালকোহলসহ বিভিন্ন প্রকার মাদকের সরবরাহ করত এবং পার্টিতে অংশগ্রহণ করত বলে গ্রেফতারকৃতরা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন।

এছাড়া মোঃ নজরুল ইসলাম ওরফে রাজ (৩৯)সহ আরও ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত অপর সদস্যরা হলো মোঃ আশরাফুল ইসলাম দীপু (২৯) তার বাড়ি সিংগাইর,মানিকগঞ্জ। সে পরীমনির ম্যানেজার। মোঃ সবুজ আলী (৩৫), পিতা-মোঃ হুসাইন কবির, থানা-সদর, জেলা-পাবনা (রাজের ম্যানেজার) । উদ্ধার করা হয় একটি মিনি বার পরিচালনার বিভিন্ন সরঞ্জামাদিসহ ৩৩ বোতল বিভিন্ন প্রকার বিদেশী মদসহ দেড় শতাধিক ব্যবহৃত বিদেশী মদের বোতল, ইয়াবা ও শিশা সামগ্রী, এলএসডি; আইস ও ইলেকট্রনিক ডিভাইস। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতদের হতে চাঞ্চল্যকর তথ্য উদঘাটিত হয়।

গ্রেফতারকৃত মোঃ নজরুল ইসলাম ওরফে রাজ’কে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় সে ১৯৮৯ সালে খুলনার একটি মাদ্রাসা হতে দাখিল পাশ করেন। পরবর্তীতে ঢাকায় গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করেন বলে দাবী করেন। অতঃপর সে বিভিন্ন ব্যবসা বানিজ্য ও ঠিকাদারী কাজ শুরু করেন। পাশাপাশি শোবিজ জগতেও তার অনুপ্রবেশ ঘটে। বিভিন্ন সিনেমা/নাটকে তিনি নানান চরিত্রে অভিনয়ের সাথে সাথে নামে বেনামে প্রযোজনায় যুক্ত হন। রাজ মাল্টি মিডিয়া নামেও তার একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। ব্যবসায়িক জগত ও চিত্র জগতের দুই ক্ষেত্রে তার সংযোগ থাকায় তিনি অতিরিক্ত অর্থ লাভের আশায় উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে নিজ অবস্থানের অপব্যবহার করেন।

গ্রেফতারকৃত মোঃ নজরুল ইসলাম @ রাজ ইতোপূর্বে গ্রেফতারকৃত শরফুল হাসান ওরফে মিশু হাসান এবং মোঃ মাসুদুল ইসলাম ওরফে জিসানের সহযোগীতায় ১০/১২ জনের একটি সিন্ডিকেট তৈরী করেন। উক্ত সিন্ডিকেটটি রাজধানীর বিভিন্ন অভিজাত এলাকায় বিশেষ করে গুলশান, বারিধারা, বনানীসহ বিভিন্ন এলাকায় পার্টি বা ডিজে পার্টির নামে মাদক সেবনসহ নানাবিধ অনৈতিক কর্মকান্ডের ব্যবস্থা করে থাকে। উক্ত পার্টিতে অংশগ্রহণকারীদের নিকট হতে সিন্ডিকেট সদস্যরা বিপুল পরিমান অর্থ পেয়ে থাকেন। অংশগ্রহণকারীরা সাধারণত উচ্চবিত্ত অভিজাত পরিবারের সদস্য। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ