আজ বুধবার, ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

পরাজিত শক্তি আমার নামে অপপ্রচার করছে:জাহেদ আলী

নবকুমার:

কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আলহাজ্ব মো: জাহেদ আলী বলেছেন, আমাদের পরাজিত শক্তি, যারা ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর পরাজিত হয়ে ক্ষান্ত হয়নি সেই পরাজিত শক্তি আমার নামে অপপ্রচার করছে। আমি সংগঠন প্রিয় লোক। সংগঠন ছাড়া আমি কিছুই বুঝি না। আমি ছাত্র নেতা ছিলাম। আমি বঙ্গবন্ধুকে দেখেছি। ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর কায়েতপাড়াবাসী আমাকে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছে। কায়েতপাড়ার মানুষ এখন শান্তিতে আছে। ছুটির দিনেও আমি কায়েতপাড়াবাসীর সেবা করে যাচ্ছি। সবাই আমার সেবা পাচ্ছে। একটি কুচক্রীমহল আমার বিরুদ্ধে উঠে পরে লেগেছে। তারা পরাজয়বরণ করে ক্ষান্ত হয়নি।
তিনি বলেন, অতীতে কৃষি জমিতে তাদের বালু ভরাটের আমি প্রতিবাদ করেছি। তারা এখন আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে। আমাকে প্রতিপক্ষ বানিয়ে তারা পত্রিকায় লেখালেখি করছে। সাংবাদিক ভাইদের প্রতি আমার শ্রদ্ধা আছে। বাংলাদেশের বাইরে আমার এক টাকার কোন সম্পদ নাই। যে লেখা প্রকাশ হয়েছে সব বানোয়াট। সাংবাদিক ভাইয়েরা বিবেকবান লোক। তারা এটা দেখবে, বুঝবে। সাংবাদিকদের আমি প্রতিবাদ জানাবো না। সাংবাদটার নিন্দাই ও প্রতিবাদ জানাই। আশাকরি পরবর্তীতে সাংবাদিক ভাইয়েরা সবার কাছে জেনে লেখা প্রকাশ করবে।

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন,পরবর্তীতে যদি এমন লেখা প্রকাশ হয় তখন আমি আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হবো।

শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) বিকালে কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সামনে ‘কতিপয় কুচক্রীমহল কর্তৃক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ষড়যন্ত্রমূলক বানোয়াট সংবাদ প্রচারের বিরুদ্ধে’ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জাহেদ আলী এসব কথা বলেন।
এসময় কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন, ওমর ফারুক ভুঁইয়া, সেলিনা আক্তার রিতা, আলতাফ হোসেন, মাসুম ভুঁইয়া, সুরুজ মিয়া, আওয়ামী লীগ নেতা শ্রী রবী রায়, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আলমগীর হোসেন, কায়েতপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি আশিক ইকবাল, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা হোসেন রাসেলসহ হর্কাস লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে টিআর -কাবিখার ব্যাপারে ইউপি সদস্য ওমর ফারুক ভুঁইয়া বলেন, টিআর -কাবিখা’র অনিয়ম করার সুযোগ নেই। কর্তৃপক্ষ এটার যথাযথ বন্টন করেন।
তিনি আরও বলেন, কায়েতপাড়ার আগের চেয়ারম্যান পরিষদে সময় দিতেন না। অনেক কাগজ পরিষদে আটকে থাকছে। জাহেদ আলী ভাই চেয়ারম্যান হওয়ার পর থেকে পরিষদে কাগজ আটকা থাকে না। তার সুনাম নষ্ট করার জন্য বিরোধীরা অপপ্রচার করছে। আমরা এর নিন্দা জানাই।

আওয়ামী লীগ নেতা শ্রী রবী রায় বলেন, আমি চেয়ারম্যানের পিএস নয়। আমি আওয়ামী লীগ নেতা। আমি দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। তাদের অপপ্রচারের প্রতিবাদ জানাই।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ