আজ রবিবার, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

‘পঁচাত্তরের পর আপনারা টের পেয়েছিলেন’

নবকুমার:

রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি , বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সকল ধর্মের লোকদের জন্য একটি নিরাপদ আশ্রয়স্থল করে দিয়েছিলেন। সেটা হলো বাংলাদেশ। বাংলাদেশকে তিনি ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু আমাদের মহান নেতা।
আমরা মুক্তিযোদ্ধারা বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়াদিয়ে বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছিলাম। বঙ্গবন্ধু মাত্র সাড়ে তিন বছর দেশশাসন করে বহু উন্নয়ন করেছিলেন। পঁচাত্তর সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর সনাতন ধর্মাবলম্বীরা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছিলেন নিরাপদ আশ্রয়স্থল কি জিনিস। এখন আপনারা বিজয়া সম্মেলন করতে পারছেন। তখন আপনারা দুর্গাপূজাও করতে পারেননি । আমরা আপনাদের গট পূজা করতে দেখেছি। মন্দিরে আপনারা ঠাকুর রাখতে পারতেন না। তারা ভেঙ্গে ফেলতো। আপনারা সবই টের পেয়েছেন। আওয়ামী লীগ গণমানুষের দল। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা যখন ছিয়ানব্বই সালে ক্ষমতায় আসলেন তখন অবস্থার পরিবর্তন ঘটল। আবার যখন বিরোধী দল ক্ষমতায় গেল অত্যাচার শুরু হলো। আমি যখন প্রথম এমপি হই, রূপগঞ্জে তখন ৮ টি পূজামন্ডপ ছিলো। এবার রূপগঞ্জে ৪৯ টি মন্ডপে পূজা হয়েছে। কোন সহিংসতা ঘটেনি।

মন্ত্রী বলেন বলেন, আমাদেরকে নেত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, অন্যান্য ধর্মাবলম্বী যারা আছেন তারা শান্তিতে বসবাস করতে পারে সেটা আমার আওয়ামীলীগ কর্মীদের দেখার দায়িত্ব। আমরা চেষ্টা করি অন্যান্য ধর্মাবলম্বী যারা আছেন তারা যেনো শান্তিতে বসবাস করতে পারে। আমরা চাই সবাই মিলেমিশে বাংলাদেশে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করি। বাঙালিরা কখনো অসামাজিক কার্যকলাপ করে না। পাকিস্থান আমলে কিছু অবাঙালি সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগিয়েছিলো। কিছু মৌলবাদী গোষ্ঠী গড়ে উঠছে। গত ১৫ বছরে বাংলাদেশে কোনো দাঙ্গা লাগেনি। এটাই শেখ হাসিনার শাসন আমল। আমরা বাঙালি মুসলমানরা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা পছন্দ করি না। আমরা সবাইকে ভালোবাসি।

গতকাল ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে বিজয়া সম্মেলন উপলক্ষে আলোচনাসভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন এড.মৃণাল কান্তি দাস এমপি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, শ্রী রমেন মন্ডল, শ্রী মনীন্দ্র কুমার নাথ। পরে অতিথিবৃন্দ বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ