আজ বৃহস্পতিবার, ৬ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

নারী ভোটারদের সমর্থনে এগিয়ে বাদশা

টি.আই.আরিফ:
রূপগঞ্জের কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে গণসংযোগ আর উঠন বৈঠকে ব্যস্ত সময় পার করছেন মেয়র প্রার্থী দেওয়ান আবুল বাশার বাদশা। কাঞ্চনে এখন তার পক্ষে জনজোয়ার লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এলাকার সাধারণ মানুষ তার পক্ষে মাঠে নামছে। শিল্পপতি আর খেটে খাওয়া মানুষের প্রথম পছন্দ বাদশা। গাজী পরিবারও তাকে সমর্থন দিয়েছে। অনুসন্ধানে জানা গেছে নারী ভোটারদের সমর্থনে এগিয়ে বাদশা। তার স্ত্রীর নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিম মাঠে কাজ করছে। মহিলা লীগ ও যুব মহিলা লীগ বাদশার পক্ষে কাজ করে যাচ্ছে।
গতকাল কাঞ্চন পৌরসভার হাটাব ও কেন্দুয়া এলাকায় উঠান বৈঠক ও গণসংযোগ করেন বাদশা। এসময় অগণিত নারী ভোটার বাদশাকে সমর্থন জানান।
মেয়র প্রার্থী দেওয়ান আবুল বাশার বাদশা বলেন, অনেক নির্বাচনে আমি পুরুষের চেয়ে মহিলাদের ভোট বেশি পেয়েছি। নারী নির্যাতন আমি চাই না।
তিনি আরও বলেন, আমি কারও জমি দখল করি নাই। কাঞ্চনের জনগণ আমার শক্তি। আমি ১০ বছর চেয়ারম্যান এবং ৫ বছর মেয়র ছিলাম, আমার দ্বারা কোন লোক নির্যাতিত হয় নাই । কোন লোককে জোর করে আমি বালু ভরাট করতে দেই নাই। উন্নয়নের নামে রফিক জনগণকে ধোকা দিয়েছে। মেয়র হওয়ার পর রফিক নিরীহ মানুষের জমি দখল করেছে,বালু ভরাট করেছে। কাঞ্চনের মানুষ এখন রিফুজি রফিকের উপর ক্ষিপ্ত। ভূমিদস্যুদের হাত থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য জনগণ আমাকে ভোট দেবে।
বাদশা আরও বলেন, ভোটারদের ভয় দেখালে আমরা ছাড় দেবো না। আমি আওয়ামী লীগে আছি । দলের দুঃসময়ে আমি ১৯৯০ থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত কাঞ্চন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলাম। গত সংসদ নির্বাচন আমি নৌকার পক্ষে কাজ করে কাঞ্চন থেকে নৌকাকে বিজয়ী করেছি। মাননীয় এমপি গোলাম দস্তগীর গাজী সাহেব আমাকে সমর্থন দিয়েছেন । আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আমার পক্ষে মাঠে কাজ করছে। মেয়র রফিক গত সংসদ নির্বাচনে নৌকায় ভোট দেয়নি। তার ভাই সাইফুল জাতীয়পার্টির এমপি প্রার্থী ছিলেন। তার ভাই লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে জামানত হারিয়েছে।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ