৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার, রাত ৩:৩২

দেশীয় প্রযুক্তিতে ন্যাপকিন মিলছে নারী কর্মীদের

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ফেরদৌসী বেগম। নারায়নগঞ্জের ফকির ফ্যাশন লিমিটেডের একজন নিরাপত্তা কর্মী। মাসিকের সময় এখন আর স্যানিটারি ন্যাপকিন কেনার জন্য বাইরে যেতে হবে না তাকে।

বিশ্ব মাসিক স্বাস্থ্য দিবস ২০২১ উপলক্ষে রবিবার গার্মেন্টেসের ভেতরে দুটি ‘জ্যোতি স্যানিটারি ন্যাপকিন ভেন্ডিং’ মেশিন স্থাপন করেছে আইওটি প্রযুক্তি নির্ভর প্রতিষ্ঠান ভার্টিক্যাল ইনোভেশনস লিমিটেড। ফেরদৌসীর মতো নারায়নগঞ্জের ভুলতায় অবস্থিত এ গার্মেন্টস কারখানার প্রায় সাড়ে ছয় হাজার নারী পোশাক কর্মী এখন দিন-রাত যেকোন সময় প্রাতিষ্ঠানিক আইডি দিয়ে ভেন্ডিং মেশিন থেকে সহজেই নামমাত্র মূল্যে ন্যাপকিন নিতে পারবেন।
বাংলাদেশে নারী পোশাককর্মীর সংখ্যা ৩২ লাখের উপরে। মাসিকের কারনে গড়ে বছরে প্রায় ৭২ দিন কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকেন, যা দেশের পোশাক শিল্পের উন্নয়নে একটি প্রতিবন্ধতা হিসেবে কাজ করে। ভেন্ডিং মেশিন স্থাপন ও নারী পোশাককর্মীদের জন্য সহজে কমমূল্যে ন্যাপকিন কেনার সুযোগ তৈরি করতে পারলে এ সমস্যা সমাধান হতে পারে বলে জানান ভার্টিক্যাল ইনোভেশন লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেজওয়ান আহমেদ নূর।

পিরিয়ড বা মাসিক নারীর জীবনে স্বাভাবিক ঘটনা। প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে, সহজে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ও স্যানিটারি ন্যাপকিন প্রাপ্তির জন্য কাজ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। একদম দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি করেছেন স্যানিটারি ন্যাপকিন ভেন্ডিং মেশিন।

ভেন্ডিং মেশিন তৈরি ও সহজে, স্বল্পমূল্যে ন্যাপকিন প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করার এই প্রচেষ্টার বিষয়ে তিনি বলেন, পিরিয়ড চলাকালীন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ স্যানিটারি ন্যাপকিন এখনো সহজলভ্য নয়। দোকান বা ফার্মেসি থেকে কেনার সময় প্রায়ই বিভিন্ন অস্বস্তিকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয় আমাদের কিশোরী ও নারীদের। সামাজিকভাবে পিরিয়ড বিষয়টি এখনও ট্যাবু হিসেবেই বিরাজ করছে, যা আমাদের কিশোরী ও নারীদের সামাজিক, শারিরীক ও মানসিক বিকাশে নানান বাধার তৈরি করে। এ কারনেই ভেন্ডিং মেশিনের মাধ্যমে নারীদের স্কুলে কিংবা কর্মক্ষেত্রে ন্যাপকিন পৌঁছে দেয়ার প্রচেষ্টা আমাদের।

ফকির ফ্যাশন লিমিটেডে ভেন্ডিং মেশিন স্থাপন সম্পর্কে প্রতিষ্ঠানটির জেনারেল ম্যানেজার সুলতান মাহবুবুল হক (এইচআর, এডমিন ও কমপ্লায়েন্স) জনান, আমাদের পোশাক কর্মরত নারী সহকর্মীদের শারীরিক ও মানসিক সুস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করেই আমরা ভেন্ডিং মেশিন স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছি। মেশিনটির মাধ্যমে যে কোন সময় যে কোন নারী পোশাককর্মী অফিসের আইডি কার্ড ব্যবহার করেই মেশিন থেকে ন্যাপকিন সংগ্রহ করতে পারবেন। বাজার মূল্যের প্রায় অর্ধেকের চেয়ে কম মূল্যে এখান থেকে তারা স্যানিটারি ন্যাপকিন সংগ্রহ করতে পারবেন। আমরা আমাদের এ উদ্যোগকে অব্যাহত রাখবো। নারী পোশাককর্মীরা ভালো থাকলেই ভালো থাকবে আমাদের পোশাক শিল্প।

ভার্টিকেল ইনোভেশন লিমিটেডে ইতোপূর্বে নারায়নগঞ্জের জাহীন নিটওয়্যার লিমিটেডের নারী পোশাক কর্মীদের জন্য ভেন্ডিং মেশিন স্থাপন করে। এছাড়া ঢাকার মোহাম্মদপুরের রিয়াদুল মুসলিমাত নামের আবাসিক স্কুলের কিশোরীদের জন্য ভেন্ডিং মেশিন স্থাপন ও বিনামূল্যে বছরজুড়ে স্যানিটারি ন্যাপকিন প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে। পাশাপাশি বান্দরবনের বম, মুরং প্রভৃতি আদিবাসীদের মাঝে বিনামূল্যে স্যানিটারি ন্যাপকিন সরবরাহ করে প্রতিষ্ঠানটি।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ