আজ রবিবার, ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

থমকে গেলো শামীমপন্থীরা

সংবাদচর্চা রিপোর্ট:

নাসিক নির্বাচনকে ঘিরে প্রকাশ্যে সরব হয়েছিলো আইভী বিরোধীরা। কিছুদিন আগে তারা ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বর্ধিত সভার ডাক দিয়েছিলো। কয়েক স্থানে তারা সভাও করেছিলো। সেই সভায় বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত শহীদ বাদল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি চন্দল শীল, সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, এড. মাহমুদা মালা, নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন ভূঁইয়া সাজনুসহ শামীমপন্থীরা । তারা মেয়র আইভীর কঠোর সমালোচনা করেন। তারা তুলে ধরেন আইভীর জমি দখল, অনিয়ম ,দুনীর্তির নানা কথা।

ওই বর্ধিত সভায় নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত শহীদ বাদল বলেন, প্রতিদিন একই জামাকাপড় পড়তে ভালো লাগে না। সবাই চায় নতুন নতুন জামা কাপড় পড়তে, অথবা ধুয়ে মুছে ইস্ত্রী করে জামা পড়তে। সিটি কর্পোরেশনের কমিশনার (কাউন্সিলর) হতে মেয়র পর্যন্ত নতুন নতুন পরিবর্তন দরকার। নতুন নতুন নেতৃত্ব দরকার। এখানে শামীম ওসমান-সেলিম ওসমানের মত ভালো মানুষ আসুক।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, কেউ কেউ নির্বাচন আসলে দলের কথা বলেন। আমরা হলাম দলের কর্মী। দলের দুঃসময়ে রাজপথে ছিলাম। হামলা মামলা খেয়েছি, জেলও খেটেছি। ক্ষেতে ধান চাষ করি আমরা, কামলা খাটি আমরা, আর ঘুঘু এসে সেই ধান খেয়ে যায়। শামীম ওসমান সুস্থ থাকলে সিদ্ধিরগঞ্জ-ফতুল্লা এলাকা আরও অনেক উন্নত হবে। ৩৪ জনের একটা সিন্ডিকেট সরকারের টাকা লুটপাট করবেন তা হবে না। আইভীর জন্য ভোট চেয়ে ছিলাম, মাফ চাই আর চাইবো না। কয়েক কোটি টাকার মশার-মেশিন ঔষধ আনা হয়েছে, সেটা কোথায় গেলো। সেটাও হজম হইয়া গেছে। রাস্তায় রাস্তায় ময়লার ভাগার। অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা সিটি কর্পোরেশনের। সামান্য বৃষ্টিতেই পানি উঠে যায়। এই হচ্ছে ওনার উন্নয়ন। পরিবর্তন চায় নারায়ণগঞ্জবাসী।

মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম বলেন, আমরা কোনো মেয়রলীগ করতে চাই না। ইতিমধ্যে নারায়ণগঞ্জে একটি মেয়র লীগ করা হয়েছে। যে মেয়র লীগে থাকবে বাংলাদেশে জাতীয়তাবাদী দল, যে মেয়র লীগে থাকবে জামাত, যে মেয়র লীগে থাকবে কিছু সুশিল, যে মেয়র লীগে থাকবে কিছু বাম। তাদেরকে সমন্বয় করে একটি মেয়ল লীগের পায়তারা করা হচ্ছে। আজকে যারা বঙ্গবন্ধুর সৈনিক, আজকে যারা শ্রমিক, আজকে যারা শামীম ওসমানের সৈনিক, আজকে যারা এখানে শেখ হাসিনার সৈনিক। আমি আপনাদের বলতে চাই প্রস্তুত থাকেন। এই মেয়র লীগের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ করার জন্য আপনাদের প্রস্তুত থাকতে হবে।

তাদের সেই সভা হঠাৎ থমকে গেলো। হাইকমান্ডের নির্দেশে তারা থমকে গেলো কিনা তা নিয়েও আলোচনা হচ্ছে। আলোচনা হচ্ছে মেয়র আইভীর সবুজ সংকেতের বিষয় নিয়েও। আইভীপন্থী একাধিক নেতা জানান, ওসমানপন্থীরা মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে যত বদনাম করছে তা মনগড়া মিথ্যা। তাদের কথা দল শুনবে না। এদিকে নাসিক নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতেও আলোচনা হচ্ছে।

উল্লেখ্য যে কোনো সময় নাসিক নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করবে ইসি। ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা লবিংয়ে ব্যস্ত।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ