আজ সোমবার, ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

তাদেরকে মানছে না

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দেশের রাজনৈতিক আন্দোলন, সংগ্রামে নারায়ণগঞ্জের গুরুত্ব অনেক। কোন দলই নারায়ণগঞ্জকে হাত ছাড়া করতে চায় না। অন্য জেলায় থেকে এসে নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলে নেতৃত্ব দিচ্ছে একাধিক নেতা। তাদের মধ্যে অনেকে ভালো নেতৃত্ব দিয়েছেন আবার অনেকে ব্যর্থ হয়েছেন। নোয়াখালী,বরিশাল, মুন্সিগঞ্জ থেকে এসে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতৃত্ব দিচ্ছে অনেকে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা ও মহানগর বিএনপির একাধিক নেতা গতকাল সংবাদচর্চাকে বলেন, বরিশাল থেকে এসে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব হয়েছে অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। উনি বিএনপির মধ্যে গ্রুপিং সৃষ্টি করছে। তাকে বাদ দিলে দল ভালো চলবে। সে ঢাকার শান্তিনগরে থাকে। জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক মনিরুল ইসলাম রবির বাড়ি নোয়াখালী, জেলা বিএনপির সদস্য রুহুল আমিনের বাড়ি বরিশাল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন এর বাড়ি মুন্সিগঞ্জ, ফতুল্লা থানা বিএনপির সদস্য সচিব টিপুর বাড়ি নোয়াখালী। তারা সবাই নারায়ণগঞ্জে দীর্ঘদিন যাবত বসবাস করছেন। অনেকে নারায়ণগঞ্জে বাড়ি করেছেন। তারা জন্মস্থানেরও খোঁজ রাখেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির সাবেক এক এমপি বলেন, অরজিনাল নারায়ণগঞ্জের সন্তানদের হাতে বিএনপির নেতৃত্ব দিতে হবে। বাইরে থেকে এসে কেউ নারায়ণগঞ্জ বিএনপিকে চাঙ্গা করতে পারবে না। তাদের কারণে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির ক্ষতি হচ্ছে। দলে কোন্দল বাড়ছে। আমরা তাদের পরিবর্তন চাই।

অপরদিকে অধ্যাপক মামুন মাহমুদরাও থেমে নেই। তারা দলের পক্ষে কাজ করছেন। তারা যে থানা, পৌর আহবায়ক কমিটি দিয়েছেন তা মানছে না তৃণমূল বিএনপির বহু নেতাকর্মী। আড়াইহাজার, সোনারগাঁ, সিদ্ধিরগঞ্জে অধ্যাপক মামুন মাহমুদের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ