আজ শনিবার, ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

গাজীর পক্ষে সমর্থনের জোয়ার তুলেছে নেতারা

টি.আই.আরিফ

জাতীয় নির্বাচন ঘিরে রূপগঞ্জে বদলে যাচ্ছে দৃশ্যপট। কোন্দলে দুর্বল হচ্ছে বিরোধী দল। থেমে নেই রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ,বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক এমপি। গতকাল সরেজমিনে দেখা গেছে চনপাড়া,কায়েতপাড়া, ভুলতা, গোলাকান্দাইল, মুড়াপাড়া ,তারাব,কাঞ্চন, দাউদপুর ,ভোলাব,রূপগঞ্জে গোলাম দস্তগীর গাজীর পক্ষে মিটিং ,গণসংযোগ করে আওয়ামী লীগ নেতা ও জনপ্রতিনিধিরা। একই সাথে থানা আওয়ামীলীগ নেতারা ইউনিয়ন ও পৌর আওয়ামীলীগ নেতাদের সাথে সমন্বয় করে গোলাম দস্তগীর গাজীর পক্ষে ভোট কেন্দ্র কমিটি গঠন করছে। এসব সভা থেকে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা গোলাম দস্তগীর গাজীকে পুনরায় এমপি নির্বাচিত করার জন্য তাকে সাপোর্ট করছে। এতে মন্ত্রীর সমর্থক বাড়ছে। যারা অভিমান করে দূরে ছিলেন তারাও এখন গোলাম দস্তগীর গাজীর পক্ষে কাজ করছে। থানা, পৌর ও ইউনিয়নের নেতা ও জনপ্রতিনিধিরা গোলাম দস্তগীর গাজীর উপর এবারও ভরসা রাখছে। চতুর্থবার এমপি হওয়ার জন্য মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন মন্ত্রী। তিনি ২০০৮, ২০১৪,২০১৮ সালে আওয়ামীলীগের মনোনয়নে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। গাজী ছাড়া রূপগঞ্জে টানা এতদিন ক্ষমতায় থাকার রেকর্ড কারও নেই। নারায়ণগঞ্জ জেলায় আওয়ামী লীগ সরকারের প্রথম মন্ত্রী তিনি।
অনুসন্ধানে জানা গেছে গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক এমপি নির্বাচিত হওয়ার পরে মুড়াপাড়া কলেজ সরকারী হয়েছে, ভুলতা ফ্লাইওভার হয়েছে, তারাবতে শীতলক্ষ্যা নদীর উপর সুলতানা কামাল সেতু হয়েছে, মুড়াপাড়ায় শীতলক্ষ্যা নদীর উপর গাজী সেতু হয়েছে। প্রত্যেকটা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তিনি নতুন ভবন দিয়েছেন। নতুন রাস্তা নির্মাণ ও পাকা করেছেন। সর্বশেষ রূপগঞ্জের পূর্বাচলে বাংলাদেশের প্রথম পাতাল মেট্টোরেল এমআরটি লাইন-১ এর নির্মাণ কাজ উদ্বোধন হয়েছে। গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে নেই কোন অনিয়ম ,দুর্নীতির অভিযোগ। মন্ত্রী হিসেবে গত সাড়ে ৪ বছরে স্থানীয় প্রশাসনের উপর তার কোনো প্রকার হস্তক্ষেপ লক্ষ্য করা যায়নি । বিভিন্ন অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসন ,উপজেলা প্রশাসন,পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা তাঁর প্রশংসা করেন।

রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও গোলাকান্দাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান তুহিন জানান, গোলাম দস্তগীর গাজীর কাছে প্রত্যেকটা দিন নির্বাচনের দিন। তিনি ১৫ বছর যাবত রূপগঞ্জবাসীকে সেবা দিয়েছেন । এখন তাকে আমাদের দেওয়ার পালা। রূপগঞ্জের আনাচে কানাচে গোলাম দস্তগীর গাজী সাহেব উন্নয়ন করেছেন। রূপগঞ্জে নেতা উৎপাদনের কারখানা গোলাম দস্তগীর গাজী সাহেব। আমি কামরুল হাসান তুহিন যুবলীগের সভাপতি –। প্রত্যেকটা সংগঠনের সভাপতি ,সেক্রেটারী , ইউপি চেয়ারম্যান,মেম্বারবৃন্দ গাজী সাহেবের সাথে আছে। এটা রূপগঞ্জ, এখানে সমস্যা থাকবেই। গোলাম দস্তগীর গাজীকে চতুর্থবারের মতো এমপি নির্বাচিত করবো।

সমন্বয় সভায় দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক বলেন, সবাইকে নিয়ে আমাদের কেন্দ্র কমিটি করবেন। এই কেন্দ্র কমিটিতে এলাকার সম্মানি ব্যক্তিদের রাখবেন। যার বাড়ীর সামনে কেন্দ্র তাকেও কেন্দ্র কমিটিতে রাখবেন। সারা রূপগঞ্জে এবার আমরা ১ লক্ষ্য ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হবো। ভোট কেন্দ্রের আশেপাশে সবাই শক্ত অবস্থানে থাকবেন। বিএনপি ,জামায়াত জোট এবার নির্বাচন ঠেকানোর জন্য অনেক ষড়যন্ত্র করছে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের টার্গেট থাকবে বিএনপি পরাজিত করার। কেউ ভুল করবেন না। আমরা সবাই এক। আগামী নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনা আবার ক্ষমতায় আসবে। রূপগঞ্জের জনগণ আমার শক্তি। আমরা আবার জিতবো।

মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ আলমাছ বলেন, মুড়াপাড়ার ৯টি ওয়ার্ড থেকে গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবো। কোন অপশক্তি মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়কে ঠেকাতে পারবে না।

ভুলতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুল হক বলেন, বিএনপি গাজী সাহেবকে হারাতে পারবে না। ভুলতা ইউনিয়নের মানুষ গোলাম দস্তগীর গাজীকে অনেক ভালোবাসে। আগামী নির্বাচনে আমরা গোলাম দস্তগীর গাজী সাহেবকে বিজয়ী করবো।

রূপগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছালাউদ্দিন ভুঁইয়া বলেন, গাজী সাহেবের নেতৃত্বে রূপগঞ্জে বহু উন্নয়ন হয়েছে। আগামী নির্বাচনে রূপগঞ্জে গাজী সাহেবের বিকল্প নাই।

রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা বলেন, গাজী সাহেবের নেতৃত্বে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ। আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কা গাজী সাহেবের আছে এবং থাকবে।

রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গাজী গোলাম মর্তুজা পাপ্পা বলেন, গত ১৪ বছর কারও সাথে কোনদিন বেয়াদবি করি নাই। এমপি,মন্ত্রীদের ছেলের মতো আচরণ আমি দেখাইনি। সবার সেবা করতে এসেছি।
রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ জানান, গোলাম দস্তগীর গাজী আবার জিতবে,আমরা সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী হবে। রূপগঞ্জের মানুষ গাজী সাহেবের সাথে আছে। তিনি রূপগঞ্জে অনেক উন্নয়ন করেছেন।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ