আজ মঙ্গলবার, ৮ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

গাজীর এলাকায় বিনামূল্যে মিলছে উন্নত চিকিৎসা


টি.আই.আরিফ

আওয়ামী লীগ সরকারের গত সাড়ে ১৪ বছরে বদলে গেছে রূপগঞ্জের স্বাস্থ্য খাত।বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীকের প্রচেষ্টায় রূপগঞ্জের দরিদ্র ও সাধারণ মানুষ এখন বিনামূল্যে পাচ্ছে উন্নত চিকিৎসা সেবা। এক ঝাক মেধাবী, দক্ষ ও অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ডাক্তার ,নার্স প্যারামেডিক ও দক্ষ স্বাস্থ্য কর্মীদের সমন্বয়ে পরিচালিত আরবান প্রাইমারী হেল্থ কেয়ার সার্ভিসেস ডেলিভারী প্রজেক্ট- ২য় পর্যায়ে ১ টি নগর মাতৃসদন ও ২টি নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্রের মাধ্যমে তারাব পৌরসভার ৯ ওয়ার্ডে দরিদ্র ও হতদরিদ্র জনগোষ্ঠির মধ্যে ঘরে ঘরে স্বল্প মূল্যে ও বিনামূল্যে ২৬ ধরণের স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হচ্ছে। তার মধ্যে রয়েছে গর্ভকালীন সেবা, প্রসব পরবর্তী সেবা, ডেলিভারী সেবা,ডেলিভারী সিজারিয়ান অপারেশন, মা ও শিশুর টিকাদান,গর্ভবর্তী মায়ের পুষ্টি,শিশু স্বাস্থ্য সেবা, চর্ম,যৌনসহ সংক্রামক রোগের চিকিৎসা,ডায়াবেটিকস্, রক্তচাপ,চোখের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয় । রক্ত পরীক্ষা,প্রশ্রাব পরীক্ষা, প্রেগনেন্সি টেস্ট,পায়খানা পরীক্ষা, ইসিজি করা হয়। লাল কার্ডধারীদের জন্য ঔষধসহ যাবতীয় সেবাসমূহ বিনামূল্যে প্রদান করা হয়। তারাব পৌর এলাকায় লাল কার্ডধারীর মোট সংখ্যা তিন হাজার পাঁচশত বাষট্টি (৩৫৬২) জন। তার মধ্যে তারাব পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ১৬৭ জন, ২ নং ওয়ার্ডে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ২৫৮ জন, ৩ নং ওয়ার্ডে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ৩১৩ জন, ৪ নং ওয়ার্ডে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ৩০৭ জন, ৫ নং ওয়ার্ডে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ৬৪২ জন, ৬ নং ওয়ার্ডে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ২৭৬ জন,৭ নং ওয়ার্ডে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ৩৯৭ জন, ৮ নং ওয়ার্ডে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ৪৭১ জন। ৯ নং ওয়ার্ডে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা গ্রহিতার সংখ্যা ৭৩১ জন।
প্রাইমারী হেল্থ কেয়ার সার্ভিসেস ডেলিভারী প্রজেক্ট- ২য় পর্যায় স্থানীয় সরকার , পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন। গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক এমপি হওয়ার আগে তারাবতে এই সেবা চালু ছিলো না। মন্ত্রীর প্রচেষ্টা ও মেয়রের সহযোগিতায় এখানে নগর মাতৃসদন ও নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু হয়েছে। নগর মাতৃ সদনে ১০ জন এমবিবিএস ডাক্তার চিকিৎসা প্রদান করে যাচ্ছে। ২৪ ঘন্টা অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস রয়েছে। নগর মাতৃ সদন খাদুনে আর নগর স্বাস্থ্য কেন্দ্র রূপসী ও নোয়াপাড়া জামদানি পল্লীতে অবস্থিত।
সেবা নিতে আসা এক গর্ভবতী মহিলা জানান, ডাক্তাররা অনেক ভালো। এখানে সহজেই আমাদের ডেলিভারী হয়। কোনদিন আমরা কল্পনা করতে পারি নাই লাল কার্ডের মাধ্যমে আমরা বিনামূল্যে চিকিৎসা পাবো। গাজী স্যারকে ধন্যবাদ। এটা আমাদের গরীবের হাসপাতাল। আমরা মায়েরা এই নগর মাতৃসদনে চিকিৎসা নিয়ে এখন আমরা মৃত্যুর ঝুকি মুক্ত থাকছি।
তারাব পৌরসভার মেয়র হাছিনা গাজী জানান, তারাবতে চিকিৎসার অভাবে কোন মানুষ এখন মারা যাচ্ছে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজীর (বীরপ্রতীক) অক্লান্ত পরিশ্রমে এখন তারাবো পৌরসভায় পাওয়া যাচ্ছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির উন্নত মানের চিকিৎসাসেবা।

আরবান প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সার্ভিসের ডেলিভারি প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক জহিরুল আলম সিকদার জানান, আরবান হেলথ্ কেয়ার ও নগর মাতৃসদনের সুফল ভোগ করছে শিল্প অঞ্চল তারাব পৌর এলাকার মানুষ। এই এলাকায় চিকিৎসা সেবার মান বদলে গেছে। দরিদ্র ও গর্ভবর্তী মায়েরা খুব অল্পসময়ে উন্নত চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে। এখানে গরীব-ধনী সবাই চিকিৎসা সেবা নিচ্ছে। গর্ভবর্তী মায়েরা সেবা নিতে এসে মেয়র হাছিনা গাজী ও মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের প্রশংসা করছে। তারা না থাকলে হয়তো এখানে এই প্রতিষ্ঠান হতো না।
প্রসঙ্গত করোনার সময় রূপগঞ্জে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার ল্যাব প্রতিষ্ঠা করেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক। গাজী পিসিআর ল্যাবে নারায়ণগঞ্জ ও এর আশেপাশের জেলার বহু মানুষের জীবন রক্ষা পায়। এছাড়া যমুনা ব্যাংক ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় রূপসীতে কিডনী ডায়ালাইসিস সেন্টার করেছেন মন্ত্রী। এই সেন্টারে রূপগঞ্জের কিডনী রোগীরা স্বল্প খরচে কিডনী ডায়ালাইসিস করাতে পারছে। আরবান হেলথ্ কিয়ার মন্ত্রীর এলাকার উন্নয়নের অংশ। এসব কাজের জন্য সাধারণ মানুষ গোলাম দস্তগীর গাজীর প্রশংসা করছে।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ