৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, সকাল ৬:২৩

কাঞ্চনে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ

নিজস্ব সংবাদদাতা:

রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার মায়ারবাড়ি এলাকায় মঙ্গলবার ২৯ জুন দুই গ্রুপের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ৭ জন আহত হয়েছে। বালু ব্যবসা, পূর্ব শত্রুতা ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মোঃ রফিকুল ইসলাম এবং আলহাজ্ব গোলাম রসুল কলির সমর্থিতদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে আহত আওয়ামী লীগ নেতা আঃ রশিদের ছেলে স্বপন (৪০), রহমউল্লাহর ছেলে শরিফ (৩০), রহিমের ছেলে আলম (৩৫), আজাহারের ছেলে রায়হান (২২), রবিউল হাসান শান্তকে (৪০) ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র ও যুবলীগ নেতা আলহাজ্ব রফিকুল ইসলামের ছোট ভাই শফিকুল ইসলাম মায়ারবাড়ি এলাকায় অন্যের জায়গায় জোড় করে বালু ভরাট করছিল। এ সময় কাঞ্চন পৌরসভার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল কলির সমর্থিত কাঞ্চন পৌরসভা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম শান্ত বাধা দেয়। এসময় তাদের মধ্যে বাক বিতন্ডা শুরু হয়। মুহূর্তেই মধ্যেই এ ঘটনা ছড়িয়ে পরে। পরে দু’পক্ষের সমর্থিতরা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে শফিকুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা মায়ারবাড়ি এলাকার ১০/১২ টি দোকান ভাংচুর করে। কাঞ্চন পৌর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নবিউল হাসান শান্ত ও ছাত্রলীগ নেতা রাব্বি হাসান শিহাবের বাড়িতে এবং কাঞ্চন পৌর ছাত্রলীগের কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। গোলাম রসুল কলির সমর্থিতরা জোটবদ্ধ হয়ে ধাওয়া করলে শফিকুল ইসলামসহ সন্ত্রাসীরা ফাকা গুলি করে বীরদর্পে চলে যায়।

এব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ওসি সায়েদ সংবাদচর্চাকে বলেন, কাঞ্চনে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের খবর শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে কাউকে পায় নাই। কোনো পক্ষ থানায় লিখিত অভিযোগ দেয় নাই। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ