আজ মঙ্গলবার, ১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কড়া নাড়ছে উপজেলা নির্বাচন

স্টাফ রিপোর্টার :

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষ হওয়ামাত্রই দরজায় কড়া নাড়ছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। এ নিয়ে নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক অঙ্গণে চলছে গুঞ্জন। নেতাকর্মীরাও নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সজাগ রয়েছেন। তথ্যমতে, চলতি (জানুয়ারি) মাসের শেষের দিকে কয়েকটি ধাপে নেওয়া এ নির্বাচনের প্রথম ধাপের তফসিল ঘোষণা করা হবে। তবে সকলের নজর নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার দিকে। গত দুই মেয়াদে নির্বাচন হয়টি এই উপজেলায়, এবারও শঙ্কা না হওয়ার।
সর্বশেষ ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ২০১১ সালে উপজেলার কিছু এলাকা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন গঠন করা হয়। পরবর্তীতে সীমানা সংক্রান্ত বিষয়ে উচ্চ আদালতে করা একটি রিটকে কেন্দ্র করে আটকে যায় এই উপজেলার নির্বাচন। তথ্যমতে, এ কারণে গত ২০১৪ ও ২০১৯ সালে এই উপজেলায় নির্বাচন হয়নি। এদিকে ২০২৪ সালে অনুষ্ঠিতব্য ৬ষ্ঠ উপজেলা নির্বাচনেও এ উপজেলার নির্বাচনকে নিয়ে কোনো আশার আলো দেখা যাচ্ছে না।
জানা যায়, সদর উপজেলার কিছু এলাকা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন গঠন হওয়ায় ওই সব এলাকা বাদ দিয়ে উপজেলা পরিষদ আইন ১৯৯৮ (২০০৯ সনের ৩০ জুন সংশোধিত) এ প্রদত্ত ক্ষমতাবলে সরকার সদর উপজেলা পুর্নগঠন করে। ২০১৪ সালের ৪ মার্চ এ সংক্রান্ত একটি গেজেট প্রকাশ করা হয়। কয়েকটি এলাকা বাদ দিয়ে উপজেলা গঠন হওয়ায় উচ্চ আদালতে একটি রিট করা হয়। যার পিটিশন নং- ৩০৮৯। এ রিট করেন ফতুল্লা চৌধুরী বাড়ির মৃত সুলতান বক্স চৌধুরীর ছেলে মো. আসাদউদ্দিন চৌধুরী, পশ্চিম মাসদাইরের মৃত মতিউর রহমানের ছেলে বজলুর রহমান ও কাশিপুর উত্তর গোয়ালবন্দের হেলালউদ্দিন মুন্সীর ছেলে মো. হামিম মুন্সী।
এদিকে নির্বাচন কমিশনের তথ্যমতে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ধাপে ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। চলতি মাসের শেষের দিকে প্রথম ধাপের তফসিল ঘোষণা করা হবে। রোজার পরে আরেকটা তফসিল হবে। এভাবে কয়েকটি ধাপে অনুষ্ঠিত হবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। ইতিমধ্যে স্থানয়ী সরকার থেকে তালিকা চাওয়া হয়েছে।
সূত্রমতে, আগামী এপ্রিল ও মে মাসের মধ্যে উপজেলা নির্বাচন শেষ করতে চায় নির্বাচন কমিশন। মোট চারশর অধিক উপজেলায় নির্বাচন হবে। তবে কয় ধাপে, কয়টি উপজেলা বা প্রথমে কোন কোন উপজেলার নির্বাচন হবে এ বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি নির্বাচন কমিশন।
প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন পাঁচ ধাপে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এ সময় জেলার ৪টি উপজেলা রূপগঞ্জ, আড়াইহাজার, সোনারগাঁ ওবন্দর উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। চতুর্থ ধাপে ৩১ মার্চ রূপগঞ্জ, আড়াইহাজার ও সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের উপজেলা সভাপতি শাহজাহান ভূঁইয়া, আওয়ামী লীগ নেতা আড়াইহাজারে মুজাহিদুর রহমান হেলো সরকার, সোনারগাঁ উপজেলায় আওয়ামী লীগের উপজেলা সহ-সভাপতি মোশারফ হোসেন নির্বাচীত হন। পঞ্চম ধাপে ১৮ জুন বন্দর উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।
এদিকে ২০২১ সালে ২২ জুলাই সোনারগাঁ উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মারাগেলে উপনির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচীত হন আওয়ামী লীগের প্রার্থী শামসুল ইসলাম ভূঁইয়া। এবার রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে খেলা হবে। শাহজাহান ভুঁইয়াকে ছাড় দেবে না রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী ও তার অনুগতরা। ইতোমধ্যে রূপগঞ্জে অনেক প্রার্থী লবিং শুরু করে দিয়েছে। জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করার কথা রয়েছে।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ