আজ বুধবার, ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

একাদশে তারা জামানত হারায়

টি.আই.আরিফ:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটের জামানত হারিয়েছেন বিএনপির নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী কাজী মনিরুজ্জামান ,নজরুল ইসলাম আজাদ, আজহারুল ইসলাম মান্নান। সুত্রের খবর নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ ) আসনে গেল সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ২ লাখ ৩৪ হাজার ৮শ৫৮ ভোট । তার নিকট তম প্রতিদ্বন্দ্বি জেলা বিএনপির সাবেক আহবায়ক কাজী মনিরুজ্জামান ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ২১হাজার ৮শ ৩২ ভোট। তিনি নিজ কেন্দ্রে গোলাম দস্তগীর গাজীর কাছে পরাজিত হয়েছেন। বিএনপির প্রার্থী কাজী মনিরুজ্জামান কে দ্বিতীয়বারের মত পরাজিত করেছেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক। নির্বাচনের পর থেকে এলাকায় তাকে খুব কম দেখা যায়।
নারায়ণগঞ্জ -২ ( আড়াইহাজার ) আসনে ধানের প্রতীকে লড়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ। তিনি ভোটের জামানত হারিয়েছেন। ভোটকারচুপির মামলাও করেছিলেন তিনি। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাবু পেয়েছেন ২ লাখ ৩ হাজার ৮৩ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ধানের শীষের নজরুল ইসলাম আজাদ পেয়েছেন ৫ হাজার ১৫২ ভোট। দলীয় কর্মীরা জানান, আজাদ কম ভোট পাওয়ার পেছনে অনেক কারণ রয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম সাবেক এমপি আঙ্গুরের সাথে তার দ্বন্দ্ব। যদিও আঙ্গুর তাকে গেল নির্বাচনে সমর্থন করেছিলো। তারপরও আজাদ হেরেছেন। তার বাড়ি কর্ণারে হওয়ায় অনেকে তাকে ভোট দেয়নি। এবার আঙ্গুর আগে থেকেই নির্বাচন পরিচালনা কমিটি করছেন। তিনি আজাদকে ছাড় দেবেন না।

সোনারগাঁ আসনে লাঙ্গল প্রতীকে মহাজোটের মনোনীত জাতীয় পার্টি দলীয় বর্তমান সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা ১ লাখ ৯৭ হাজার ৭৮৫ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। অপরদিকে ধানের শীষের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আজাহারুল ইসলাম মান্নান পেয়েছেন ১৮ হাজার ৪৭ ভোট। সিংহ প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল কায়সার পেয়েছেন ২ হাজার ৮৪৪ ভোট।
ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ আসনে নৌকা প্রতীকে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ২১৬টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৩ লাখ ৯৩ হাজার ১৩৬ ভোট পেয়ে বিপুল ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন। অপরদিকে ধানের শীষ পেয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের প্রার্থী মুফতী মনির হোসেন কাসেমী পেয়েছেন ৭৬ হাজার ৫৮২ ভোট।
সুত্রের খবর মোট প্রদত্ত ভোটের শতকরা আট ভাগের একভাগের নীচে ভোট পাওয়ায় তারা জামানতের অর্থ হারায় । শুধুমাত্র নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের জমিয়তে ইসলামের ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী মুফতি মনির হোসেন কাসেমীর জামানত টিকে আছে। নির্বাচন বিধি অনুযায়ী, কোন প্রার্থী মোট প্রদত্ত ভোটের শতকরা আট ভাগের একভাগের নীচে ভোট পেলে তিনি জামানত হারাবেন।
গেল বার নারায়ণগঞ্জের যে সব আসনে বিএনপির প্রার্থীরা জামানত হারিয়েছেন এবার সেই সব আসনে বিএনপির একাধিক নতুন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। সদর -বন্দর, ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ আসনে বিএনপি থেকে প্রার্থী দেওয়ার দাবি জোড়ালো হচ্ছে। সুত্রের খবর সাবেক এমপি গিয়াস উদ্দিন, আবুল কালামও দলীয় মনোনয়ন চাইবেন।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ