আজ বৃহস্পতিবার, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

‘আমরা কারও সাথে বিরোধ করবো না’


টি.আই.আরিফ
দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক বলেছেন,আমরা চাই কারও সঙ্গে বিরোধ নয়। আমাদের কেউ কিন্তু প্রতিপক্ষ নয়। আমাদের নিজেদের দলের মধ্যে যতই দূরত্ব করিনা কেনো যখন নৌকা আসবে একটি নৌকাই আসবে। নৌকা কিন্তু একটাই সেই নৌকায় সবাইকে উঠতে হবে। আমাদের মধ্যে কোন বিরোধ থাকবে না। যে আমাদের বিরোধ করছে করুক, আমরা কারও সাথে বিরোধ করবো না, কারণ এক নৌকায় আমাদের সবাইকে উঠতে হবে। আজকে যদি বিরোধ করি তারা হয়ত আমাদের উপর রাগ করে আমাদের নৌকায় নাও উঠতে পারে । সবাইকে এক করে আমরা নৌকার মিছিলে অংশগ্রহণ করবো এবং নৌকার নির্বাচন করবো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আমরা আবার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করবো।

তিনি বলেন, নির্বাচনের আগে আমাদের চলমান উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত হবে। এটা উন্নয়নের সরকার। এটা শেখ হাসিনার সরকার।

গতকাল রূপগঞ্জ উপজেলার দাউদপুরের বেলদী দারুল হাদীস ফাজিল মাদ্রাসা মাঠে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মরহুম এনামুল হকের স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বলেন, আমাদের বিরোধী দল যারা আমাদের বিপক্ষে কথা বলেন তাদেরকে বলতে হবে আপনারা কি উন্নয়ন করেছেন আমাদেরকে দেখান। আর আমরা কি উন্নয়ন করেছি আপনাদেরকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখাতে পারবো। আপনারা দেখান আর আমরা দেখাই। ভাওতাবাজি দিয়ে ইলেকশন হয় না। বাস্তব চোখে উন্নয়ন দেখে ভোট দেবেন সবাই। কারও চেহারা দেখে ভোট দেবেন না, সবাই উন্নয়ন দেখে ভোট দেবেন।
বিরোধী দলের নেতাদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, যখন শতভাগ বিদ্যুত ছিলো তখন বিরোধী দল আমাদেরকে ধন্যবাদ জানান নাই। বিএনপি নেতারা বলেছিলো পদ্মা সেতু হবে না, বঙ্গবন্ধুর কন্যা পদ্মা সেতু করেছে। সেই পদ্মা সেতু দিয়ে আপনারা চলাচল করছেন। খালি সমালোচনা করবেন এটা ঠিক না। আপনারা আমাদের ভালো চোখে দেখেন না। বিদ্যুৎতের সমস্যা থাকবে না।

গোলাম দস্তগীর গাজী আরও বলেন, আমার ছোট ছেলে অসুস্থ। সবাই আমার ছোট ছেলের জন্য দোয়া করবেন। আমরা ভুল করে থাকলে আপনারা আমাদেরকে ক্ষমা করে দেবেন।

দাউদপুরবাসীর উদ্দেশে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক বলেন, আপনাদের ঘরে বিদ্যুৎ ছিলো না, আমি এসে আপনাদের বিদ্যুৎ দিয়েছি। রাস্তা পাকা করে দিয়েছি। স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসায় নতুন ভবন দিয়েছি। বিএনপি সরকারের আমলে বাজেট ছিলো না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে উন্নয়ন করে গেছেন আমরা সে ভাবে কাজ করে গেছি। এনামুল হকের আর্থিক লোভ ছিলো না। তিনি ত্যাগী কর্মী ছিলেন।তার কোন চাওয়া পাওয়া ছিলো না। ত্যাগী কর্মীরা মনে করবে মারা গেলে তার মৃত্যুবার্ষিকী পালন করবে। আমি চলে গেলে হয়ত আপনারা আমার মৃত্যুবার্ষিকী পালন করবেন। এটা একটা নমুনা।

অনুষ্ঠানে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ- সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন মোল্লা’র সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্মসাধারন সম্পাদক আব্দুল আজিজ ভুঁইয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্মসাধারন সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মেহের, উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রান ও সমাজকল্যান বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মারফত আলী, উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মতিউর রহমান আকন্দ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজুর রহমান সজিব, বাংলাদেশ যুবলীগের জনশক্তি ও কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব লায়ন শাহীন মালুম, উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান শাহিন, দাউদপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সৈয়দ রফিকুল ইসলামসহ অনেকে।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ