১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, সন্ধ্যা ৭:৪৪

আবারও গ্যাস পাইপের উপর মসজিদ নির্মাণ

সংবাদচর্চা রিপোর্টঃ

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের ধনকুন্ডা এলাকায় গ্যাস লাইনের উপর অবৈধ ভাবে মসজিদ নির্মানের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিতাস গ্যাস কোম্পানীর অনুমোদিত ৪ ইঞ্চি পাইপের উপরে এই মসজিদ নির্মানের জন্য খুঁটি স্থাপন করা হয়েছে। এতে স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, তল্লা এলাকায় গ্যাস জমে মসজিদে বিস্ফোরণ হয়েছে জেনেও একটি একটি মহল জোর করে গ্যাস লাইনের উপর মসজিদ বানানোর চেষ্টা করছে। তিতাস ও প্রশাসন বলছে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

জানা গেছে, তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ তাদের অধিগ্রহন করা জায়গায় ৪ ইঞ্চি পাইপের মেইন লাইনের গ্যাস সংযোগ তারা ১০ থেকে ১২ ইঞ্চি পাইপ লাইন স্থাপন করে আশপাশে আবাসিক সংযোগ দিয়েছে। সেই পাইপ লাইনের সংযোগের উপরে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই মসজিদ নির্মাণ করার জন্য খুঁটি স্থাপন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ তিতাস গ্যাসের ব্যবস্থাপককে অবগত করে তা বন্ধ করার জন্য আবেদন করেছেন ওই এলাকার মোর্শেদা বেগম নামের এক নারী। তিনি আবেদনে অভিযোগ করেন, আমাদের বাড়ির পাশ দিয়ে তিতাস গ্যাস কোম্পানীর অধিগ্রহন করা জায়গায় ৪ ইঞ্চি গ্যাস পাইপের মেইন লাইন থেকে সরাসরি ১০ থেকে ১২ ইঞ্চি পাইপে তাদের গ্যাস লাইনের সংযোগ রয়েছে। এই গ্যাসের পাইপের উপর কামাল হোসেন নামে এক ব্যাক্তিকে মসজিদ নির্মাণ করার চেষ্টা করছে। এখানে মসজিদ নির্মাণ করা হলে যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই জরুরী ভিত্তিতে গ্যাস লাইনের উপর মসজিদ নির্মাণ বন্ধ করার জন্য ওই নারী এলাকাবাসির পক্ষে তিতাসের কাছে অনুরোধ জানান। 

এই আবেদনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিতাস গ্যাসের এক কর্মকর্তা বলেন, তিতাসের নিজস্ব সম্পত্তির এবং তিতাসের গ্যাস পাইপের উপর কোন স্থাপনা থাকতে পারবে না। ওই এলাকাটিতে যে পাইপটি রয়েছে তা তিতাস গ্যাস কোম্পানীর ডেমরা থেকে গোদনাইল ধনকুন্ডা এলাকার আবাসিক গ্যাস সংযোগ পাইপ। এই পাইপের উপর যদি কোন মসজিদ নির্মাণ করার চেষ্টা করা হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে তিতাস কঠোর ব্যবস্থা নিবে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, যেখানে মসজিদ নির্মান করার চেষ্টা করা হচ্ছে সেখানে প্রবেশ পথে রয়েছে একটি গ্যাস রাইজার। এই রাইজার দিয়ে এই এলাকার বিভিন্ন বহুতল ভবনেও গ্যাসের সংযোগ দেয়া হয়েছে। গ্যাস পাইপের খুব কাছেই রয়েছে অনেক ভবন। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনেও ড্রেন বানানো হয়েছে এই রাস্তার পাশ দিয়ে। এই ড্রেনের উপর দিয়ে এলাকার অনেকে চলাচল করে। তবে ড্রেনের পাশে ও গ্যাস পাইপের উপর মসজিদ বানানোর জন্য খুঁটি স্থাপন করা হয়েছে। যারা এ খুঁটি স্থাপন করেছে তাদের দাবি এ বিষয়ে স্থানীয় কাউন্সিলরও জানে।

এ বিষয়ে জানতে ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রহুল আমিনে মোল্লার মুঠো ফোনে একাধিক বার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের সহকারি কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান ফারুন বলেন, বিষয়টি আমরাদের জানা ছিলো। এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দিলে আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করবো।  

উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে আটটার দিকে ফতুল্লার পশ্চিম তল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণ ঘটে। এশার নামাজ পড়তে যাওয়া ৩৭ জন মুসল্লি ও এক জন পথচারী দগ্ধ হন। এদের মধ্যে ৩৪ জন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে মারা যান।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ