আজ বুধবার, ১১ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৪শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে থাকার ঘোষণা পাপ্পা গাজীর

টি.আই.আরিফ
রূপগঞ্জের গাউছিয়া কাচাবাজারে ১৭০ টি দোকানের জিনিসপত্র আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে। গত ২৪ মার্চ রাত আড়াইটার দিকে এই ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় ৩শ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানান আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা। রোববার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন গাজী গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও এমপিপুত্র গাজী গোলাম মূর্তজা পাপ্পা। এসময় তিনি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলেন এবং তাদেরকে সহযোগিতা করার আশ^াস দেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন গোলাকান্দাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান তুহিন, দৈনিক সংবাদচর্চা পত্রিকার সম্পাদক মো: মুন্না খাঁনসহ গাউছিয়া মার্কেট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির নেতৃবৃন্দ।
ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি গাজী গোলাম মূর্তজা পাপ্পা বলেন , আমি আপনাদের পাশে আছি। আমি চেষ্টা করবো সরকারের কাছ থেকে আপনাদের ক্ষতিপূরণ এনে দেওয়ার । সবাই বীমা করবেন। মার্কেটে আগুন নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা রাখবেন। গাউছিয়া ও কাচপুরে দুইটা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপনের জন্য আমার বাবা গাজী গোলাম দস্তগীর মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব দিয়েছে। এতো আগুন লাগার কারণ আমার জানা নেই। যদি কোনচক্র আগুন দিয়ে থাকে তারা ধরা পড়লে রক্ষা পাবে না। আমরা সবাই সতর্ক থাকবো।

ভোররাত সাড়ে ৪ টার দিকে ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। স্থানীয়রা জানান রূপগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস আগুন লাগার দেড় ঘন্টা পরে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছে। তারা আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে আসলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কম হতো। ডেমরা ও আড়াইহাজার থেকে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আগে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য কাজ করে। গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা আগুন লাগার কারণ খুঁজতে গতকাল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের তালিকা করে রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন এমপিপুত্র গাজী গোলাম মূর্তজা। আর আগে ২০২২ সালেও একই মার্কেটে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এবার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বেশি। ঈদকে সামনে রেখে ব্যবসায়ীরা দোকানে বিভিন্ন রকমের মালপত্র তুলে রেখে ছিলেন। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের কান্না যেনো এখন থামছে না।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ