আজ বুধবার, ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র বিশ্বাস করে: পাপ্পা গাজী

নবকুমার:

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীকের জ্যেষ্ঠপুত্র ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক গাজী গোলাম মর্তুজা পাপ্পা বলেছেন, বঙ্গবন্ধু গণমানুষের নেতা ছিলেন। আওয়ামী লীগ গণমানুষের দল। আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র বিশ^াস করে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমানুষের নেত্রী। তার দক্ষ নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে এবং আওয়ামী লীগ আরও শক্তিশালী হচ্ছে।

মন্ত্রীপুত্র বলেন, বিএনপি ভোট চুরি শিখিয়েছে। তারা গণতন্ত্র বিশ^াস করে না। ক্যান্টরমেন্টে বসে বিএনপির জন্ম। সারাজীবন ক্ষমতায় থাকতে চেয়েছিলেন খালেদা-তারেক। তাদের মদতে তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী শেখ হাসিনার উপর গ্রেনেড হামলা হয়। খুনিদের টার্গেট ছিলো শেখ হাসিনা। ওরা ভেবেছিলো শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে পারলেই দেশে আর কোন শক্তিশালী বিরোধী দল থাকবে না। তখন আওয়ামী লীগ নেতৃত্ব শূন্য হয়ে যাবে। আল্লার অশেষ রহমতে নেতাকর্মীদের মানবঢালে সেদিন শেখ হাসিনা প্রাণে বেচে যান। নিহত হয় আওয়ামী মহিলা লীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক বেগম আইভি রহমানসহ ২৪ জন নেতাকর্মী। এছাড়া ওই হামলায় আরো ৪শ’র অধিক নেতাকর্মী আহত হয়। আহতদের অনেকেই চিরতরে পঙ্গু হয়ে গেছেন। তাদের কেউ কেউ আর স্বাভাবিক জীবন ফিরে পাননি। এসময় একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা গাজী গোলাম মর্তুজা পাপ্পা। তিনি বলেন, নেত্রীর দেহরক্ষী মাহবুবুর রশিদ নিজের জীবন দিয়ে আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছেন।

রবিবার ২১ আগস্ট সরকারী মুড়াপাড়া কলেজের গাজী অডিটোরিয়ামে আয়োজিত ২০০৪ সালের একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে দোয়া ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গাজী গোলাম মর্তুজা পাপ্পা এসব কথা বলেন। যৌথভাবে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ।

অনুষ্ঠানে রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সোহেল আহমেদ, কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম, মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব তোফায়েল আহমেদ আলমাছ, গোলাকান্দাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান তুহিন, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির জনশক্তি ও কর্মসংস্থান বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ¦ লায়ন শাহিন মালুম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক সভাপতি মাহবুবুর রহমান মেহের, রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তাবিবুল কাদির তমাল, রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান শাহিন, কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম মনির, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাঈম ভুঁইয়া, রূপগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন, দৈনিক সংবাদচর্চা পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক আব্দুল্লাহ খান মুন্না, আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল মান্নান মুন্সি, রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাছুম চৌধুরী অপু, রূপগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোতাহার হোসেন নাদিম, শ্রমিকলীগ নেতা মতিউর রহমান আকন্দ, কাউন্সিলর আনোয়ার হোসেন, রাসেল সিকদার, এবিএম আতিকুর রহমান, ইউপি সদস্য রেহেনা আক্তার, রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ফয়সাল শিকদার, সহ-সভাপতি রিয়াজ, সাধারণ সম্পাদক মাছুম, সরকারী মুড়াপাড়া কলেজের ভিপি তুহিন, জিএস সজিব উপস্থিত ছিলেন।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ