আজ মঙ্গলবার, ১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আইভীর আওয়াজ এখন গণদাবি

সংবাদচর্চা রিপোর্ট :

নারায়ণগঞ্জ শহরের সমস্যাগুলো নিয়ে যখন আলোচনা ওঠে তখন ফুটপাত দখল করে হকারদের দৌরাত্মের বিষয়টি প্রধান হয়ে দাঁড়ায়। এই হকারদের কাছ থেকে প্রতিনিয়ত নানাভাবে সুবিধা গ্রহণ করা জনপ্রতিনিধি, সমাজপতিদের ভিড়ে একমাত্র ব্যতিক্রম হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। নগরবাসীকে স্বাচ্ছন্দ্যে ফুটপাতে হাঁটার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য আওয়াজ তুলেছিলেন তিনি। যদিও এজন্য সিটি মেয়র আইভীর রক্তও ঝরেছিল, তবুও পিছ পা হননি তিনি। তাঁর এই আওয়াজ এখন নগরবাসীর গণদাবিতে রূপান্তরিত হয়েছে।
এই শহরের প্রধান সড়ক বঙ্গবন্ধু সড়ক। হাজারো মানুষের পদচারণায় মুখর থাকে সড়কটি। কিন্তু সড়কটির দুই পাশের প্রশস্ত ফুটপাত সকাল থেকে রাত পর্যন্ত হকারদের দখলে থাকে। এতে চলাচলে বিঘ্ন ঘটে সাধারণ মানুষের। ফুটপাতে হাঁটাতো দূরের কথা মূল সড়ক দিয়েও চলাচল দুষ্কর হয়ে পড়ে কেননা বেশকিছু অংশে ফুটপাতের পর মূল সড়কও দখল করে ব্যবসা করে থাকেন হকাররা। শহরের যানজটেরও একটি বড় কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে এই হকার।
অভিযোগ রয়েছে, ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে প্রশাসনের লোকজন নিয়মিত হকারদের কাছ থেকে মাসোয়ারা নিয়ে থাকেন। হকার ও তাদের কাছ থেকে সুবিধা গ্রহণ করা মহলটি গড়ে তুলেছে এক ‘অভেদ্য সিন্ডিকেট’। ফলে হকারদের দৌরাত্ম দিন দিন কেবল বাড়ছেই।
হকার সমস্যার কারণে ভুক্তভোগী হাজারো মানুষের মধ্যে একজন গৃহিনী রিতা আক্তারও। তিনি বলেন, ‘আমার বাচ্চার স্কুল বাসা থেকে হাঁটা পথের দূরত্বে। কোন যানবাহনে ওঠার প্রয়োজন হয় না। কিন্তু ফুটপাত দিয়ে হাঁটার মতো কোন উপায় নেই। পুরোটাই থাকে হকারদের দখলে। ফলে বাচ্চাকে নিয়ে মূল সড়ক দিয়ে হাঁটতে হয়। এতে দুর্ঘটনার ঝুঁকির মধ্যে থাকি সবসময়।’
নগরবাসীদের কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, হকারদের কারণে শুধু যে ফুটপাতে হাঁটাতে সমস্যা হচ্ছে তা নয়। ফুটপাত দিয়ে হাঁটার সময় হকারদের দ্বারা নারীদের লাঞ্ছনার শিকারের ঘটনাও ঘটেছে এই শহরে। ঘটেছে এক হকার আরেক হকারকে খুনের মতো ঘটনাও।
তবে নগরবাসীকে হকার সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে জোরালো আওয়াজ তুলেছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। ফুটপাত ছেড়ে দিয়ে বিকল্প উন্মুক্ত স্থানের ব্যবস্থা করে দিতেও প্রস্তাব দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কাজ হয়নি। তবে দমে যাননি আইভী। যদিও এজন্য সড়কে রক্ত ঝরাতেও হয়েছে তাকে। ২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারি হকার ইস্যুকে কেন্দ্র হামলার শিকার হন সিটি মেয়র আইভী। তখন হকারদের পক্ষ নিয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে প্রভাবশালী সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানও।
তবে দীর্ঘ সময়ে বদলেছে প্রেক্ষাপট। হকার সমস্যার কারণে ভুক্তভোগী অনেকেই এখন আওয়াজ তুলছেন। পুলিশ ও প্রশাসনের সাথে বিভিন্ন সময়ে আলোচনায় হকার সমস্যা সমাধানের তাগিদ দিয়েছেন অনেকে।
এদিকে, শহরের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আলোচনা ও সমাধানের ব্যাপারে গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করেছে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব। সেখানে সিটি মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর পাশাপাশি উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমানসহ অন্যান্য জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক, সামাজিক ও নাগরিক প্রতিনিধিরা। ওই আলোচনায় অন্যান্য সমস্যার পাশাপাশি মুখ্য হয়ে উঠবে হকার ও ফুটপাত দখলের বিষয়টিও।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ