আজ রবিবার, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

অমিতের মৃত্যুর ঘটনায় মামলার আবেদন

সংবাদচর্চা রিপোর্ট:

একটি বেসরকারী ব্যাংকের নিরাপত্তা প্রহরী অমিত ওরফে অনিক হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাসহ ১৪ জনকে আসামি করে মামলার আবেদন করেছেন নিহতের পিতা আমির হোসেন। গতকাল দুপুরে নারায়ণগঞ্জের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম কাওসার আলমের আদালতে মামলার আবেদন করেন তিনি। আদালত মামলার আবেদন আমলে নিয়ে থানা তিন কার্যদিবসের মধ্যে পুলিশকে প্রতিবেদন ও ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দিয়েছেন।
আদালত পুলিশের পরির্দশক আসাদুজ্জামান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মামলায় ১৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামি করা হয়েছে। আদালত মামলার বাদী এবং আইনজীবীর বক্তব্য শুনে তিন দিনের মধ্যে পুলিশ ও ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলায় আসামি করা হয়েছে রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি রাশেদ ভূঁইয়া, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল শিকদার একই ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি শাহ্ আলম, একই উপজেলার কালাই বাবু, মো. রাসেল, শাহীন মিয়া, জাহাঙ্গীর মোল্লা, মো. ওবায়দুর, আলাউদ্দিন, মিজান, ছাত্রলীগ নেতা রাজীব, মো. রানা, মো. রিফাত, মো. ইমরান। এছাড়াও অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলার বাদী পক্ষে আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাখাওয়াত হোসেন খান।
নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (রূপগঞ্জ) আবির হোসেন জানান, ট্রাক চাপায় অনিকের মৃত্যু হওয়ায় তখন অপৃমত্যু মামলা হয়। পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা করতে আসেনি।
গত ৩ নভেম্বর রাতে রূপগঞ্জের ভুলতা এলাকায় প্রাইভেটকারের ধাক্কায় আহত অমিত নামে এক যুবকের চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলে মৃত্যু হয়। ঢাকা -সিলেট মহাসড়কের ভুলতা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
অমিত হাসান রাজনীতি করতেন না। রাজনৈতিক সম্পৃক্ততা নেই দাবি পরিবারেরও। যা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার হয়।
রূপগঞ্জ উপজেলা যুবলীগ সভাপতি কামরুল হাসান তুহিন গণমাধ্যমকে বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি ফায়দা লুটতে একটা দুর্ঘটনাকে হত্যা বলে অপপ্রচার করছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ছেলেটার পরিবার প্রথমে বলেছিলো অমিত সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে। বিভিন্ন গণমাধ্যমে সেই কথা প্রচার হয়েছে। যুবলীগ, ছাত্রলীগের যে সব কর্মীর নামে মামলার আবেদন করেছে আমরা আমাদের কর্মীদের পাশে আছি। আমরা আইনী লড়াই করবো। এটা মিথ্যা মামলার আবেদন।
ঘটনার দিন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. আমির খসরু গণমাধ্যমকে বলেন, প্রাথমিক ভাবে জানতে পারছি সড়ক দুর্ঘটনায় অমিতের মৃত্যু হয়েছে। এ ব্যাপারে আমাদের কাছে কোন লিখিত অভিযোগ আসে নাই। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম বলেন, অমিত ছাত্রদলের কোন কর্মী না। সে ছাত্রলীগের নেতাদের সাথে বিভিন্ন সভায় গেছে। ছাত্রলীগ নেতাদের সাথে তার অনেক ছবি আছে। অমিত গাউছিয়ায় ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের এজেন্ট শাখার নিরাপত্তা প্রহরীর কাজ করতেন।
তিনি আরও বলেন, অমিতের বাবা আমাদেরকে বলেছিলো মামলা করবেন না। এতদিন পর আজ (গতকাল) কার কথায় মামলার আবেদন করলেন তা আমার জানা নেই।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রূপগঞ্জ বিএনপির এক নেতা গতকাল এই প্রতিবেদককে বলেন, ছেলেটা (অমিত) সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে এটা সত্য। রাজনৈতিক ফায়দা লুটার জন্য দিপু ভুঁইয়া একটা দুর্ঘটনাকে হত্যা বলে আমাদের দলের নেতাদের কাছে জানায়। এই ঘটনার আগ পর্যন্ত কাঞ্চন ৫ নং ওয়ার্ডে ছাত্রদলের কোন কমিটি ছিলো না। অমিত ছাত্রদলের কেউ না।
সুত্রের খবর, ‘লাশ দাফনের পর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অমিতের বাবার সাথে স্কাইপে কথা বলেছেন তারেক রহমান। সেখানে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম,সহ সাংগঠনিক সম্পাদক বেনজীর আহমেদ, বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান দীপু ভুঁইয়া উপস্থিত ছিলেন। দীপু ভুঁইয়া, সাখাওয়াত হোসেন, হুমায়ুনদের পরামর্শে অমিতের বাবা নারায়ণগঞ্জ কোর্টে মামলার আবেদন করতে যায়। মামলা করলে ছেলেটার বাবা কিছু পয়সা পাবে। মামলা না করলে হয়ত পয়সা পাবে না’।
বিএনপির আরেক নেতা বলেন, অমিতকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা অমিত হত্যার বিচার চাই। অমিত হাসান (অনিক) কাঞ্চন পৌরসভার চরপাড়া এলাকার আমীর হোসেনের ছেলে।
নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই গণমাধ্যমকে বলেন, অমিত আমাদের দলের একজন সক্রিয় কর্মী। বিএনপি লাশের রাজনীতি করছে। যেখানে লাশ সেখানে তারা গিয়ে হাজির হয়। তারা দাবি করে এটা আমাদের লোকছিলো । এটা ঠিক নয়। তারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ