২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, সকাল ৯:৫৬

অল্পের জন্য বেঁচে যান শামীম ওসমান

সংবাদচর্চা রিপোর্ট:

পশ্চিম তল্লায় ভয়াবহ বিস্ফোরনের ঘটনার পর ফের শামীম ওসমানের কথা মনে করেছেন এলাকাবাসী। তারা বলছেন, আরেক বিস্ফোরনের সময়ে অল্পের জন্য বেঁচে গিয়েছিলেন এমপি শামীম ওসমান। তিনি অনেক্ষন ধরে যে রুমে অবস্থান করছিলেন সে রুম ছেড়ে চলে পাশের রুমে যাওয়ার পরই ভয়াবহ সে বিস্ফোরণ ঘটে।.

শুক্রবার এশা’র নামাজের সময়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১১ নম্বর ওয়ার্ড পশ্চিম তল্লা চামারবাড়ি এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে ভয়ংকর বিস্ফোরনে ৫৫ জন দ্বগ্ধ হয়। এর মধ্যে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস ও মসজিদ কমিটির নেতারা মনে করছেন, গ্যাসের লিকেজ থেকে মসজিদের এসি বিস্ফোরণ ঘটেছে। আবার কারও কারও মতে, আগে এসি বিস্ফোরণ হয়েছে পরে গ্যাসের সাথে মিলে তা ভয়ংকর রূপ নেয়। পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম বিষয়টিকে দুর্ঘটনা বলেই মনে করেন। তবে এমপি শামীম ওসমান এ ঘটনার সাথে নাশকতা যুক্ত থাকতে পারে মন্তব্য করেছেন।

তার এ মন্তব্য ও মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনার পর মানুষ ১৯ বছর আগের একটি ঘটনার কথা ফের আলোচনা করছে। ২০০১ সালের ১৬ জুন চাষাঢ়া আওয়ামী লীগ অফিসে ভয়াবহ ওই বোমা হামলায় ২০ জন নিহত হয়েছিলো। ওই সময়ে শামীম ওসমান যে রুমে বসা ছিলেন সে রুমেই বিস্ফোরণ হয়। তবে বিস্ফোরণের কিছুক্ষন আগে তিনি সেখান থেকে উঠে পাশের রুমে যান। বোমা বিস্ফোরণে আহত হলেও সেদিন অল্পের জন্য বেঁচে যান শামীম ওসমান।

স্পন্সরেড আর্টিকেলঃ